রবিবার, ২১ Jul ২০১৯, ০১:০৪ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
কেন্দুয়ায় বিদ্যুৎস্পর্শে এক ব্যক্তির মৃত্যু মদনে নৌকা থেকে পড়ে গিয়ে সবজি বিক্রেতার মৃত্যু জামালগঞ্জে বজ্রপাতে নিহত দুই পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান সুনামগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে পুড়ানো হলো তিনটি ড্রেজার মেশিন জামালগঞ্জে জন্মনিবন্ধন জালিয়াতি ও অশ্লীল ভিডিও রাখার দায়ে ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা সৈয়দপুরে অসামাজিক কার্যকলাপের দায়ে ৩ জনের বিনাশ্রম কারাদন্ড শহিদুল ইসলাম ডিগ্রী কলেজ ২য় বার ঝিনাইদহ জেলার শ্রেষ্ঠ কলেজ নির্বাচিত নীলফামারীতে যুব মহিলা লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত রাজারহাটে অবৈধ কারেন্ট জাল জব্দ আটক- ২ নেত্রকোনার হাওরাঞ্চলে একটি মৎস্য গবেষনা ইনষ্টিটিউট গড়ে তোলা হবে- মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু




আখাউড়ায় ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার

আখাউড়ায় ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার




 

মোঃজুয়েল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া পৌরশহরের দেবগ্রাম সরকারী পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগে এক শিক্ষককে গ্রেফতার করা হয়।খবর নিয়ে জানা যায়,৯জুলাই দুপুর ২টার দিকে ৭ম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে বিদ্যালয়ের স্কুল চলাকালীন সময়ে বিদ্যালয়ের ক-শাখার শ্রেণী কক্ষে ছাত্রীর স্পর্শকাতর জায়গায় হাত দিয়ে শ্লীলতাহানি করেন ঐ বিদ্যালয়ের সহকারী ইংরেজি শিক্ষক পলাশ মিয়া(৪০)।লম্পট পলাশ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার পাকশিমুল গ্রামের মৃতঃ হায়দার আলীর ছেলে।

দেখুন ভিডিওতে কিভাবে ছাত্রীর শ্লীলতাহানি করেছিল।

ছাত্রীর শ্লীলতাহানির দ্বায়ে আখাউড়া থানায় অভিযোগ করেন ছাত্রীর পিতা ফারুক মিয়া। পরে আখাউড়া থানা পুলিশ বিদ্যালয়ে অভিযান চালিয়ে শিক্ষক পলাশ কে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসেন।
ছাত্রীর পিতা ফারুক মিয়া বলেন, বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণীর কক্ষে আমার মেয়ের স্পর্শকাতর জায়গায় হাত দেয় শিক্ষক পলাশ মিয়া। পরে শ্রেণী কক্ষের ছাত্রীরা তার প্রতিবাদ করে। এর আগেও তিনি এরকম জগন্য কাজে লিপ্ত ছিলেন। আদালতের দেয়া সাজা ভোগের পরে সে আবারো প্রধান শিক্ষকের সহযোগিতায় এই বিদ্যালয়ে পূণঃবহাল থাকে। আমি মাননীয় প্রধান মন্ত্রী এবং আইনমন্ত্রীর কাছে তার বিচার চাই। দেবগ্রামের যুবসমাজ অভিযোগ করে সাংবাদিককে জানান, কয়েক বছর আগে ছাত্রীর সাথে অবৈধ কাজ করার কারনে তাকে গ্রেফতার করে জেলে পাঠানো হয়েছিল। এছাড়া সে অনেক মেয়েদেরকে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছে । ক্লাস এবং ক্লাসের বাইরে ও সে ছাত্রীদের ইভটিজিং করতো।ইজ্জত ও মানসম্মানের ভয়ে অনেক মেয়েরাই মুখ বুঝে সহ্য করে নেয় তার নষ্টামি । কেউ কেউ আবার বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জনাব মাহফুজুর রহমান কে ও দোষারোপ করছে এমন শিক্ষককে বিদ্যালয়ে রাখার কারনে।দেবগ্রামবাসী এমন অপরাধের দৃস্টান্ত মূলক বিচার ও শাস্তি কামনা করেন।গ্রামের শতশত যুবক লম্পট শিক্ষক পলাশের বিচারের দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান সহ মিছিল করে।
এলাকাবাসী আরো জানায়, শিক্ষক শামসুল ইসলাম পলাশ ক্লাসে বিভিন্ন অশ্লীল ও আপত্তিকর কথাবার্তা বলে এবং ছাত্রীদের গায়ে হাত দিয়ে শ্লীলতাহানি করে। ইতোপূর্বে স্কুল কমিটি এমন অভিযোগ পেয়ে একাধিকবার সতর্ক করে নোটিশ দেন তাকে। কিন্তু তারপরও তিনি এমন কাজ থেকে বিরত হননি। এছাড়া পূর্বেও স্কুলছাত্রী শ্লীলতাহানির ঘটনায় জেল হাজতবাস করেছেন তিনি।
আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি রসুল আহমেদ নিজামী বলেন, শ্লীলতাহানির অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির মামলা প্রক্রিয়াধীন। আগামীকাল তাকে জেলা আদালতে প্রেরণ করা হবে।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *













©২০১৩-২০১৯ সর্বস্তত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | দুর্জয় বাংলা
Desing & Developed BY DurjoyBangla
error: Content is protected !!