শুক্রবার, ১৯ Jul ২০১৯, ০৮:২৩ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
কেন্দুয়ায় প্রধানমন্ত্রীর অর্থ সহায়তা তহবিল থেকে প্রাপ্ত চেক বিতরণ করেন -এমপি অসীম কুমার উকিল বারহাট্টায় বন্যার্ত মানুষের পাশে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু শৈলকুপায় ১ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ, থানায় মামলা সরল বিশ্বাসের ভূল,কী বোঝাতে চেয়েছেন দুদক চেয়ারম্যান! “দুর্নীতি মানে দুর্নীতি” ওবায়দুল কাদের অধ্যক্ষ আবদুল কাদের বাশঁখালীর শ্রেষ্ঠ অধ্যক্ষ নির্বাচিত সিরাজগঞ্জে মাদক বিরোধী কুইজ প্রতিযোগিতা ও বৃক্ষরোপন কর্মসূচী পালিত কেন্দুয়ায় মোটর সাইকেলের ধাক্কায় নারীর মৃত্যু জৈন্তাপুরে এপিবিএন’র অভিযানে গাজাসহ আটক ১ সরিষাবাড়ীতে বন্যাদুর্গতদের মাঝে মেয়রের ত্রান বিতরন কেন্দুয়ায় শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় হুমায়ূন আহমেদকে স্মরণ




কর্পোরেশনের কাজের পরিবেশ আরো উন্নত হবে। তবে এ ব্যাপারে সবার সম্মিলিত প্রয়াস প্রয়োজন, আ জ ম নাছির

কর্পোরেশনের কাজের পরিবেশ আরো উন্নত হবে। তবে এ ব্যাপারে সবার সম্মিলিত প্রয়াস প্রয়োজন, আ জ ম নাছির




জাহাঙ্গীর আলম নির্বাহী সম্পাদকঃ
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন কর্পোরেশনের জনবলকাঠামো অনুমোদনে আপ্রান চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। অস্থায়ীদের বেতনও বৃদ্ধি করা হবে। এ ব্যাপারে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ভুলবুঝাবুঝির কোন অবকাশ নাই। গতকাল বৃহষ্পতিবার কর্পোরেশনের বিদায়ী সচিব মো. আবুল হোসেনের বিদায়ী সংবর্ধনায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা। এতে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিদায়ী সচিব মো. আবুল হোসেন, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আবু শাহেদ চৌধুরী, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়–য়া, প্রধান প্রকৌশলী মহিউদ্দিন আহমেদ, চসিক শ্রমিক কর্মচারি লীগ সিবিএ এর সাধারন সম্পাদক মোরশেদুল আলম। এসময় মঞ্চে কাউন্সিলর মো. আবুল হাশেম, স্পেশাল ম্যাজিষ্ট্রেট (যুগ্ম জেলা জজ) জাহানারা ফেরদৌস, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আফিয়া আখতার উপস্থিত ছিলেন।

মেয়র আরো বলেন একজন কর্মকর্তার সবচেয়ে বড়গুন হলো সততা,দক্ষতা ও বি”ক্ষনতা এবং সকলের নিকট আস্থাভাজন হওয়া। আর সব গুণাবলী কর্পোরেশনের বিদায়ী সচিব এর মধ্যে বিদ্যমান ছিল। তিনি কর্পোরেশনে দায়িত্ব পালনকালে সবসময় আমার সাথে পরামর্শ করতেন। আমার প্রত্যাশা, তিনি একদিন পূর্ণ সচিবের দায়িত্ব পাবেন। কর্পোরেশনের দায়িত্বকালীন সময়ে তিনি চেস্টা করেছেন কর্পোরেশনের কাজের পরিবেশকে উন্নত করতে, যা পেরেছেনও। আমি আশাকরি কর্পোরেশনের কাজের পরিবেশ আরো উন্নত হবে। তবে এ ব্যাপারে সবার সম্মিলিত প্রয়াস প্রয়োজন। বিদাীয় সচিব মো. আবুল হোসেন বলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনে প্রায় ৩ বছর দায়িত্ব পালন করেছি। সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চাকরি জীবনে বদলী একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। এর মাঝেও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনে দায়িত্বকালীন সময়টা অভিজ্ঞতাপূর্ণ ও স্মৃতিময়। এখানে কাজের ধরনের কারনে অনেক ধরনের মানুষের সাথে ভাব বিনিময় ও মতের আদান প্রদান হয়েছে। যা আমার কর্মজীবনের বড় প্রাপ্তি ও সৌভাগ্যর বিষয়। এখানে দায়িত্ব কালীন সময়ে সকল কর্মকর্তা কর্মচারী ও সহকর্মীদের আন্তরিক সহযোগিতা পেয়েছি। মেয়র মহোদয়ও কখনো কাজের বিষয়ে চাপ প্রয়োগ করেননি। সর্বদা স্বাধীনভাবে কাজ করার অনুপ্রেরণা যুগিয়েছেন মেয়র মহোদয়। পরে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন ও কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বিদায়ী সচিব মো. আবুল হোসেনকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এসময় কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে মেয়র বিদায়ী এ কর্মকর্তার হাতে ক্রেস্ট ও উপহার তুলে দেন।

বিদায়ী সচিব মো. আবুল হোসেনের স্থলাভিষিক্ত হলেন চসিক প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আবু শাহেদ চৌধুরী। কর্পোরেশনের সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালনকালীন সময়ে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *













©২০১৩-২০১৯ সর্বস্তত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | দুর্জয় বাংলা
Desing & Developed BY DurjoyBangla
error: Content is protected !!