শুক্রবার, ১৯ Jul ২০১৯, ০৮:২৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
কেন্দুয়ায় প্রধানমন্ত্রীর অর্থ সহায়তা তহবিল থেকে প্রাপ্ত চেক বিতরণ করেন -এমপি অসীম কুমার উকিল বারহাট্টায় বন্যার্ত মানুষের পাশে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু শৈলকুপায় ১ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ, থানায় মামলা সরল বিশ্বাসের ভূল,কী বোঝাতে চেয়েছেন দুদক চেয়ারম্যান! “দুর্নীতি মানে দুর্নীতি” ওবায়দুল কাদের অধ্যক্ষ আবদুল কাদের বাশঁখালীর শ্রেষ্ঠ অধ্যক্ষ নির্বাচিত সিরাজগঞ্জে মাদক বিরোধী কুইজ প্রতিযোগিতা ও বৃক্ষরোপন কর্মসূচী পালিত কেন্দুয়ায় মোটর সাইকেলের ধাক্কায় নারীর মৃত্যু জৈন্তাপুরে এপিবিএন’র অভিযানে গাজাসহ আটক ১ সরিষাবাড়ীতে বন্যাদুর্গতদের মাঝে মেয়রের ত্রান বিতরন কেন্দুয়ায় শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় হুমায়ূন আহমেদকে স্মরণ




দশটা টাহা দে কিছু খাইমু-খালু পাগলা

দশটা টাহা দে কিছু খাইমু-খালু পাগলা




জাহাঙ্গীর তালুকদার (হালুয়াঘাট) প্রতিনিধিঃ হালুয়াঘাটের ৮নং নড়াইল ইউনিয়ের কুমুরিয়া গ্রামের বাজারে থাকে খালু পাগলা।এক নামেই পরিচিত খালু পাগলা,আসল নাম জানে না কেউ।কুমুরিয়া বাজারে  প্রায় ১০ বছর ধরে

তার রাত কাটে রাস্তায় কিছু দিন কার ও ঘরের বারান্দায়।তবে জানা যায়-তার বাড়ি কিশোরগঞ্জ।

তবে কি সেটা সত্যই নাকি মিথ্যা সেটা জানেন না কেউ।তিনি সব কিছু লেখতে পারে হাতের লেখা বলে দেয় তিনি একজন শিক্ষিত মানুষ। প্রতিদিন মানুষের কাছে ৫-১০ টাকা চেয়েই জীবণ চলে তার। হাতে একটি বস্ততা ও লাটি নিয়ে সারা দিন ঘুড়ে বাজারে বা দোকানে যা কেই সামনে পাই তাকেই বললেন খালু ১০টা টাকা দে কিছু খাইমু রুটি কিনে দে। এভাবেই চলে তার জীবণ,কেউ জানে না তার আসল ঠিকানা।এলাকাবাসী জানাই-খালু পাগলা মানুষের কাছে টাকা চায় আর সারা দিন যে টাকা পায় সেই টাকা কিছু কিনে খাই আর বাকি টাকা মসজিদের দরজায় সামনে রেখে আসে। আজ পযর্ন্ত কার ও কোনো ক্ষতি করে নাই,সে তার মতো চলছে।তবে তাকে দেখার মতো কেউ নেই।হয় তো কারো সাহায্য পেলে তার জীবনটা ভালো ভাবে চলতো।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *













©২০১৩-২০১৯ সর্বস্তত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | দুর্জয় বাংলা
Desing & Developed BY DurjoyBangla
error: Content is protected !!