শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯, ১০:২১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
টংগিবাড়িতে আনারস মার্কার মত-বিনিমিয় সভা অনুষ্ঠিত মুক্তাগাছায় অ্যাম্বুলেন্সে ৩৫টি প্লাস্টিক কন্টেইনারে ৯৪৫ লিটার মদ উদ্ধার।  মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর সাথে ইউনিসেফের সৌজন্য সাক্ষাৎ বর্তমান সরকার সুবিধা বঞ্চিতদের পাশে রয়েছে : গোয়াইনঘাটে পৃথক অনুষ্টানে জেলা প্রসাশক চাঁদাবাজি, সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত কলারোয়া গড়তে চাই নির্বাচনী পথ সভায় লাল্টু উন্নয়ন প্রকল্পগুলো এমনভাবে গ্রহণ করুন, জনগণ ক্ষতিগ্রস্ত না হয়-প্রধানমন্ত্রী।  ওবায়দুল কাদেরের সুস্থতায় চট্টগ্রাম তৃণমূল এনডিএম কার্যালয়ে দোয়া মাহফিল শিক্ষকদের বেতন ১১তম গ্রেড বাস্তবায়নের দাবিতে যশোরে মানববন্ধন ত্রিশালে শ্যামলী বাংলা পরিবহনের বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে ২০ যাত্রী আহত।  আগৈলঝাড়ায় কৃষি প্রযুক্তি হস্তান্তর মেলা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত




নীলফামারীর ঐতিহ্যবাহী নীলসাগর বিনোদন কেন্দ্রকে করা হচ্ছে ‘নীলসাগর ইকোপার্ক’

নীলফামারীর ঐতিহ্যবাহী নীলসাগর বিনোদন কেন্দ্রকে করা হচ্ছে ‘নীলসাগর ইকোপার্ক’




শাহজাহান আলী মনন, নীলফামারী জেলা প্রতিনিধিঃ নতুন পরিচিতি পাচ্ছে পাখির অভয়াশ্রম ও নীলফামারীর বিনোদন কেন্দ্র ‘নীলসাগর’। এখানে জেলা প্রশাসনের তত্বাবধানে করা হচ্ছে ‘নীলসাগর ইকো পার্ক’। যার আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়েছে গত ২২ ফেব্রæয়ারী শুক্রবার। ওই দিন দুপুরে ফলোক উন্মোচন করে ইকো পার্কের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন রংপুর বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ জয়নুল বারী।
এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক বেগম নাজিয়া শিরিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রুহুল আমিন, নীলফামারী পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।
অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক আব্দুল মোত্তালেব মোল্লা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) শাহিনুর আলম, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট খন্দকার নাহিদ হাসান, নীলফামারী সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মামুন ভুইয়া, ডোমার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে ফাতেমা, ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমুন নাহার, কিশোরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ, জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নেজারত ডেপুটি কালেক্টও (এনডিসি) মাহবুব হাসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
উদ্বোধনকালে বিভাগীয় কমিশনার জয়নুল বারী বলেন, নীলসাগর বাংলাদেশের মধ্যে একটি পরিচিত স্থান। বিভিন্ন স্থান থেকে পর্যটকগণ আসেন এখানে বেরাতে। ভ্রমণ পিপাসুদের জন্য বিনোদনের ব্যবস্থাও এটি।
ঐহিত্যপুর্ণ নীলসাগরকে কিভাবে আরো দর্শনীয় করা যায় এজন্য পরিকল্পনা গ্রহণ করা হচ্ছে। জেলা প্রশাসনের তত্বাবধানে এটি করা হবে।
নীলফামারী জেলা প্রশাসক বেগম নাজিয়া শিরিন বলেন, সব মিলিয়ে নীলসাগরকে পরিপুর্ণ করতে চাই। যাতে পর্যটকগণ বিনোদন গ্রহণ করতে পারেন এখানে এসে। প্রকৃতি, পরিবেশ, সবুজায়ন এবং বিভিন্ন প্রাণী এখানে সংরক্ষণ করার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। আগামী তিন বছরের এটি সম্পন্ন করা হবে।
পরে সেখানে তিনটি বকুল গাছের চারা রোপণ করেন বিভাগীয় কমিশনার এবং অন্যান্য অতিথিগণ। একই দিনে জুম্মার নামাজ আদায়ের মাধ্যমে নীলসাগরের ভেতরে অবস্থিত ওয়াক্তিয়া মসজিদটি ‘নীলসাগর জামে মসজিদ’ হিসেবে পুর্ণতা লাভ করে।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *













©২০১৩-২০১৯ সর্বস্তত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | দুর্জয় বাংলা
Desing & Developed BY DurjoyBangla