রবিবার, ২১ Jul ২০১৯, ০১:৪২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
কেন্দুয়ায় বিদ্যুৎস্পর্শে এক ব্যক্তির মৃত্যু মদনে নৌকা থেকে পড়ে গিয়ে সবজি বিক্রেতার মৃত্যু জামালগঞ্জে বজ্রপাতে নিহত দুই পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান সুনামগঞ্জে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে পুড়ানো হলো তিনটি ড্রেজার মেশিন জামালগঞ্জে জন্মনিবন্ধন জালিয়াতি ও অশ্লীল ভিডিও রাখার দায়ে ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা সৈয়দপুরে অসামাজিক কার্যকলাপের দায়ে ৩ জনের বিনাশ্রম কারাদন্ড শহিদুল ইসলাম ডিগ্রী কলেজ ২য় বার ঝিনাইদহ জেলার শ্রেষ্ঠ কলেজ নির্বাচিত নীলফামারীতে যুব মহিলা লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত রাজারহাটে অবৈধ কারেন্ট জাল জব্দ আটক- ২ নেত্রকোনার হাওরাঞ্চলে একটি মৎস্য গবেষনা ইনষ্টিটিউট গড়ে তোলা হবে- মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু




রাজারহাটে হাঁসের খামার করে স্বাবলম্বী মোন্নাফ

রাজারহাটে হাঁসের খামার করে স্বাবলম্বী মোন্নাফ




এ.এস.লিমন,রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ 
কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার নাজিমখান ইউনিয়নের কুটিপাড়া গ্রামের হতদরিদ্র আব্দুল মোন্নাফ হাঁসের খামার করে স্বাবলম্বী হয়েছে। তিনি ৬ বছর পূর্বে ধার দেনা করে প্রথমে ২০-২৫টি হাঁস কিনে পালন শুরু করেন। এরপর মোন্নাফকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। এভাবেই যাত্রা শুরু হয় মোন্নাফ আলীর এগিয়ে চলার পথ। বর্তমান তার খামারে ১০০০ অধিক হাঁস রয়েছে। তিন মাস বিরতীহীন ভাবে প্রতিদিন হাঁসগুলো গড়ে ডিম দেয় ২০০-২৫০ টির মত। প্রতিটি ডিম বাজারে পাইকারী হিসাবে ৮-৯ টাকা দরে প্রতিদিন মোট ডিম বিক্রি করেন ১৮০০-২০০০ টাকা। এছাড়া ৩/৪ মাস পর পর এক একটি পরিপক্ক হাঁস বাজারে বিক্রি করেন সর্বনিন্ম ২৫০-৩৫০ টাকায়। তিনি হ্যাচারী থেকে হাঁসের বাচ্চা কিনে এনে খামারে পালন করেন। প্রতিটি হাঁস পরিপক্ক হতে খাদ্য ওষুধ বাবদ খরচ হয় ৯০-১০০ টাকা। খামারী আব্দুল মোন্নাফ এ প্রতিনিধিকে জানান,প্রায় ৬ বছর ধরে হাঁস পালন করে আসছি ,আর হাঁসের খামারের আয় থেকে বর্তমান গরু-ছাগল ও জমি কিনেছি এবং পরিবার- পরিজনকে নিয়ে সুখে-শান্তিতে বর্তমান দিনযাপন করে আসছি। অথচ ৫-৬ বছর পূর্বে অনাহারে-অর্ধাহারে পরিবার-পরিজনকে নিয়ে কোন রকমে দু বেলা দু-মুঠো ভাত খেতে পেরেছি। সবকিছুই আল্লাহ তায়ালার ইচ্ছা। নাজিমখান ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক পাটোয়ারী (নয়া) বলেন, আব্দুল মোন্নাফের হাঁসের খামারটি অত্র এলাকার জন্য অনুকরণীয় হয়ে থাকবে। তিনি হাঁস পালন করে নিজে স্বাবলম্বী হয়েছে। তার এই হাঁসের খামার দেখে অত্র এলাকায় অনেক শিক্ষিত বেকার যুবকরা হাঁসের খামার গড়ে তুলতে শুরু করেছে। এতে বেকারত্ব দুর হবে এই প্রত্যাশা করছি। এ বিষয়ে রাজারহাট উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃজোবাইদুল ইসলাম বলেন,খাল- বিল ও মৎস্য খামারে হাঁস পালনের জন্য উপযোগী স্থান ও পরিবেশ। হাঁস পালনের উপযোগী পরিবেশের কারণে অনেকেই নিজ উদ্যোগে হাঁসের খামার গড়ে তুলে যেমন স্বাবলম্বী হচ্ছেন, তেমনি ডিম ও মাংসের চাহিদা মেটাচ্ছেন। আমরা প্রাণি সম্পদ বিভাগের পক্ষ থেকে হাঁস পালনকারীদের পরামর্শ ও সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছি।।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *













©২০১৩-২০১৯ সর্বস্তত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | দুর্জয় বাংলা
Desing & Developed BY DurjoyBangla
error: Content is protected !!