13.7 C
New York
Saturday, July 31, 2021

অভিনয় জীবনের সমাপ্তি ঘোষণা

রাখাল বিশ্বাস

বিজ্ঞাপন

পরম ভালবাসার ও শ্রদ্ধেয় নাট্য/যাত্রাশিল্পী এবং ভক্তপ্রাণ দর্শকশ্রোতা মন্ডলী, আমার অভিনয় জীবনের সমাপ্তি ঘোষণা করতে গিয়ে আপনাদের উদ্দেশ্যে কিছু কথা।
শ্রদ্ধেয় পাঠক,
১৯৭৮ ইং সনে আমি প্রথম বড় মঞ্চে অভিনয়ে আসি। ভারতের প্রখ্যাত পালাকার কানাইলাল নাথের “মা ও ছেলে” যাত্রাপালায় অনাথ আশ্রমের বালক জ্যোতি চরিত্রে অভিনয় করে আমি প্রসংশিত হই। এ পালায় অন্য যারা অভিনয় করে ছিলেন তারা হলেন, আমার ওস্তাদ প্রয়াত যাত্রাশিল্পী সুশীল বিশ্বাস, মতিউর রহমান চেয়ারম্যান, ইঞ্জিনিয়ার আলমগীর সাহেব, কৃষি কর্মকর্তা সত্যেন্দ্র চন্দ্র দাস, জহিরুল আলম স্বপন, ইসলাম উদ্দিন, আব্দুল কাদের বাঙালী, প্রয়াত সাজেদুর রহমান খান তাজু, নুরুন্নবী তালুকদার রোকন, ভূপাল কৃষ্ণ সরকার ওরফে ভোলাবাবু প্রমুখ শিল্পীবৃন্দ।

বিজ্ঞাপন

তারপর অসংখ্য পালায় বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করি। ১৯৮৫ ইং সনে ওস্তাদ সুশীল বিশ্বাসের হাত ধরে কোহিনূর অপেরায় প্রথম যাত্রাদলে অভিনয় করতে যাওয়া হয়। পরবর্তীতে নেত্রকোণার মহুয়া অপেরা, বন্ধন অপেরা, অগ্রগামী যাত্রাইউনিট, কৃষ্ণা অপেরা, রাজলক্ষী অপেরা, যমুনা অপেরাসহ ১০/১২টি যাত্রা দলে নাইট কন্ট্রাকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত অভিনয় করেছি। এছাড়া ওয়ান নাইট এ্যামেচার পালায় বহুমঞ্চে অভিনয় করে দেশের অনেক জেলা উপজেলায় ঘুরেছি। যাত্রাদলসহ শতাধিক মঞ্চের পরিচালকের দায়িত্বও পালন করেছি। অভিনয়কে ভালবেসে ব্যবসা ছেড়েছি, সংসারে রয়েছি উদাসীন।

১৯৯০ইং সনে প্রথম যাত্রপালা রচনা করি “দু:খিনী বধূ” নামে যা তৎকালীন কেন্দুয়া যাত্রাপ্রদর্শনী মঞ্চে প্রথম রজনী হিসেবে উদ্বোধন করা হয়। তারপর প্রায় প্রতি বছর একটি করে পালা রচনা করে মঞ্চায়ন করি। এ পর্যন্ত ছোট বড় ৩০টি পালা নাটক আমি রচনা করেছি এবং সব গুলোই মঞ্চস্থ হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

২০০১ ইং সনে “প্রেয়সী পতিতা” এবং “ঘরভাঙ্গা সংসার” নামে আমার লেখা দুইটি পালা ঢাকার মফিজ বুক হাউজ হতে ছাপার অক্ষরে প্রকাশিত হয়েছে। আমি বেশ গর্বকরে বলতে পারি অভিনয়- নাটক-যাত্রাকে ভাল বেসে আমি যা দিয়েছি অনেকেই তা দেননি। আবার এজগতে আমি যা পেয়েছি তাও অনেকেই পাননি। আমি ধন্য হয়েছি অগণিত মানুষের শ্রদ্ধা সম্মান ও অফুরন্ত ভালবাসা পেয়ে। আমার দীর্ঘ অভিনয় জীবনে তৈরি হয়েছে শত শত ভক্তকূল। আমি উদীচীর ময়মনসিংহ বিভাগীয় “নাট্যজন” সম্মাননা পেয়েছি, পেয়েছি “বীরঙ্গনা সখিনা সিলভার পেন অ্যাওয়ার্ড” এবং নেত্রকোণা জেলা শিল্পকলা একাডেমী পদক। এছাড়া যাত্রাপালাকার হিসেবে মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের রাঙ্গা সকাল অনুষ্ঠানে আমাকে নিয়ে এক ঘন্টার লাইভ প্রোগ্রাম দেখানো হয়েছে। লোকসাহিত্য ও সংস্কৃতি নিয়ে কাজ করতে গিয়ে আমার লেখা ২০২০ ও ২০০১ ইং সনে চারটি বই প্রকাশিত হয়েছে যথাক্রমে- গবেষণাগ্রন্থ “লোকসাহিত্যের অন্বেষণে, সংস্কৃতিকর পাঁচ ফোড়ন, এবং গল্পের বই আমি তুমি সে ও উপন্যাস আজো বাজে সেই কাঁকন।”

সম্মানিত পাঠক, এ পর্যন্ত লেখা টুকু যারা পড়ছেন তাদের কাছে মনে হতে পারে এটা ধান বানতে শিবের গীত। অথবা নিজেকে বিজ্ঞাপনের মত তুলে ধরে নিজেই নিজেকে বাহবা দিচ্ছেন। আসলে কী বলতে চান সেটা বলুন। আমি বিনয়ের সাথে বলবো একটু কষ্ট করে সময় অপচয় হলেও লেখা দুই তিনটি পর্ব পড়–ন। প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন। আমাদের নেত্রকোণা জেলায় বহু গুণী নাট্য বা যাত্রশিল্পী ছিলেন। বেশ কয়েকটি যাত্রা দলও ছিল। কেন্দুয়াতে সুনামধন্য অনেক যাত্রশিল্পী ছিলেন। বর্তমানে কেন্দুয়াতে তো নেই-ই নেত্রকোণা জেলাতেও হাতে গুনা কয়েকজন যাত্রার প্রবীন গুণী শিল্পী জীবিত আছেন। তার মধ্যে অন্যতম এফ এম আব্দুর রাজ্জাক গোসাই, গৌরাঙ্গ আদিত্য, মতিউর রহমান চেয়ারম্যান, আব্দুল খালেক, নাগর আলী সাহেব, খগেন্দ্র পন্ডিত, নজরুল ইসলাম কারী মিয়া, আঃ হান্নান, ওয়ারেশ উদ্দিন, রণজিত সরকার, চন্দন সরকার প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন

আমি যদি বয়সের দিক বাদ দিয়ে অভিনয় বয়সকে বিবেচনায় এনে হিসেব মেলাই তাহলে দেখা যাবে যাত্রার সিনিয়র মঞ্চশিল্পী সারা জেলায় খুব বেশী এখন আর জীবিত নেই। আমার মত ৪০/৪৫ বছর শিল্পী জীবনের শিল্পীর সংখ্যা খুব কমই জীবিত আছেন। ১৯৬১ সনের ১৫ মার্চ আমার জন্ম হলেও ১৯৭৮ সন হতে মঞ্চে অভিনয় করি। সে অর্থে নিজেকে আমি প্রবীণ শিল্পীই মনে করতে পারি। আমার সুদীর্ঘকাল অভিনয় জীবনে দেশের বহু জেলা উপজেলায় অভিনয় করতে গিয়ে বিচিত্র অভিজ্ঞতা, ভিন্ন-ভিন্ন ঘটনা প্রবাহ স্মৃতির সাতকাহন- অনেক কিছুই ঘটেছে। এতে দু:খ পেয়েছি, কষ্ট পেয়েছি আবার অপার আনন্দও পেয়েছি। আমার হাত ধরে অনেক শিল্পীও তৈরি হয়েছে। কাউকে যাত্রায় নিয়ে নিজের বেডে রেখে যাত্রাশিল্পীও তৈরী করেছি। এ শিল্প রক্ষায় খ্যাতিমান যাত্রাশিল্পী প্রয়াত কৃষ্ণা চক্রাবর্তীর সাথে ঢাকার রাজপথে আন্দোলনও করেছি।
(চলবে)

আরো পড়ুন: শীতার্তদের পাশে গৌরীপুর প্রেস ক্লাব

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

Please enter your comment!
Please enter your name here

বিজ্ঞাপন

সর্বশেষ সংবাদ

x