ইসলামপুর পৌর নির্বাচনে আওয়ামীলীগ দলীয় প্রার্থীদের তৎপরতা বৃদ্ধি

জামালপুর

মোঃ হোসেন আলী শাহ্ ফকির, ইসলামপুর প্রতিনিধি (জামালপুর): জামালপুরে ইসলামপুর প্রথম শ্রেণির পৌরসভার নির্বাচনের কে হচ্ছেন নৌকার মাঝি এ প্রশ্নে ঘোরপাক খাচ্ছে পৌর বাসীর মুখে মুখে। আ’লীগের পক্ষে সম্ভাব্য ৯ জন মেয়র প্রার্থীদের তৎপরতা বৃদ্ধি।
জানা যায়, ইসলামপুর পৌরসভাটি ১৯৯৯ ইং সালে গঠিত হওয়ার পর তৎকালিন ভুমি প্রতিমন্ত্রী প্রয়াত আলহাজ রাশেদ মোশাররফ এর দ্বিতীয় তন্ময় প্রয়াত সাজেদ মোশাররফ সেবক তিনি ১৯৯৯ সালের এপ্রিল মাসে নির্বাচনে প্রথম পৌর চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হন। এ পৌরসভায় শুরু থেকে পর-পর ৪ বার আ’লীগের প্রার্থীর দখলে রয়েছে।



বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ঘোষিত আগামী ডিসেম্বরে মেয়াদ উত্তির্ণ পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। ইসলামপুরে আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মেয়র পদে আ’লীগ দলীয় নৌকা প্রতীক পেতে সম্ভাব্য ৯ জন মেয়র প্রার্থী নির্বাচনী তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। চায়ের দোকান থেকে শুরু করে সর্বত্রই নির্বাচনের আগাম হাওয়া বিরাজ করছে। নানা আড্ডায় মেতে উঠেছে পৌরসভার বর্তমান হালচাল। পৌরসভা নির্বাচনের ভোটের সম্ভাবনা থাকায় সবাই যেন নড়েচড়ে বসেছেন ভোটারসহ সম্ভাব্য প্রার্থীরা।
সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, পৌরবাসীর সমর্থন পেতে মেয়র প্রার্থীদের সমর্থকরা শহরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে ফেস্টুন, ব্যানার, বিলবোর্ড টানিয়েছেন আবার অনেকেই গণমাধ্যম ফেসবুকে ভোটারদের দোয়া চেয়ে ভাইরাল হচ্ছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। আবার অনেকেই প্রচার মাধ্যম বেছে নিয়েছেন স্থানীয় পত্রিকায় বিজ্ঞাপন,সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের ওয়ালে পোস্ট করে। কেউ কেউ করোনা মাহামারীতে খাদ্যসামগ্রী ও আর্থিক সহায়তা প্রদান করে আবার অনেকেই ঈদ উপলক্ষ্যে শাড়ি, লুঙ্গি ঈদ সামগ্রী বিতরণ করে আলোচনায় কেন্দ্রবিন্দুতে এসেছেন ।



সম্ভাব্য প্রার্থীরা প্রচার-প্রচারণা ও সামাজিক কর্মকান্ডের মধ্য দিয়ে দলের নেতা-কর্মী ও ভোটারদের আকৃষ্ট করে নিজের অবস্থান শক্ত করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। দলীয় মনোনয়নের টিকিট পেতে দলের তৃণমূল থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় নেতা পর্যন্ত গ্রুপিং লবিং করে ব্যস্ত সময় পার করছেন। সম্ভাব্য প্রার্থীরা আগাম মাঠে নেমে পড়ায় এবার ইসলামপুর পৌরসভা নির্বাচনে কে পাবেন ক্ষমতাসীন আ’লীগের দলীয় নৌকার মনোনয়ন-এ নিয়ে চলছে ভোটারদের মাঝে নানান জল্পনা কল্পনা। কে যোগ্য? আর কে অযোগ্য তা নিয়ে আলোচনা-সমালোচনায় নানা মহলে হচ্ছে চুল-চেরা বিচার বিশ্লেষণ।
প্রথম শ্রেণির ইসলামপুর পৌরসভায় বর্তমান মেয়র পদে আছেন উপজেলার আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল কাদের শেখ। তিনি ২০১১ সালের মার্চ মাসে নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম ঢালীকে পরাজিত করে দু’বার মেয়র পদে নির্বাচিত হন। বর্তমানে তিনি মেয়র পদে দায়িত্ব পালন করছেন। আসন্ন নির্বাচনে তিনিও মেয়র প্রার্থী হিসাবে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী। এ ছাড়া মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন চাইতে পারেন এমন যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলেন-উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, উপজেলা আ’লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এস.এম.জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা আইন বিষয়ক সম্পাদক খাজা কাদের রাহাত পাহলোয়ান, উপজেলা আ’লীগের সহ-দপ্তর সম্পাদক সালাউদ্দিন শাহ্, পৌর আ’লীগের সভাপতি নুর ইসলাম নুর ও সাধারণ সম্পাদক শ্রী অংকন কর্মকার, উপজেলা আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক এ.কে.এম রকিবুজ্জামান লাভলু, এ্যাডভোকেট আর মাইনুল হাসান (জারজিস)। তাই সম্ভাব্য প্রার্থীরা দলের নীতি-নির্ধারক,স্থানীয় সংসদ সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ ছাড়াও কেন্দ্রীয় পর্যায়ে জোর জোর লবিং তদবির শুরু করেছেন। প্রার্থীদের প্রচার প্রচারণায় পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে সর্বত্র চলছে নানা বিশ্লেষণ।
জানা গেছে আ’লীগ দলীয় হাইকমান্ডে নির্দ্দেশ অনুযায়ী মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি রাজনৈতিক দল হিসাবে আ’লীগ দলীয় মেয়র পদটি যেন পরিবারিকভাবে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তির হয় সে বিষয়টি গুরুত্ব পাচ্ছে এবার সবচেয়ে বেশি। এছাড়া বিগত বিএনপি-জামায়াত জোট এবং সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় কোন নেতা হয়রানি নির্যাতনের শিকার হয়েছেন, সেটিও স্থান পাচ্ছে। এদিকে পৌর নাগরিকরা পৌরসভার উন্নয়নে মেয়র হিসেবে দেখতে চান সৎ,যোগ্য তরুন ও মহান মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের কোন প্রার্থীকে।

আরো পড়ুন>> গৌরীপুরে সেফটিক ট্যাংকে নেমে দু’জনের মৃত্যু

আপনার মতামত লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here