13.7 C
New York
শনিবার, মে ৮, ২০২১

কেন্দুয়ায় মাদ্রাসার ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগে ইমাম কারাগারে

সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা, বিশেষ প্রতিনিধি:

বিজ্ঞাপন

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগে মঞ্জুরুল হক নামের এক ব্যক্তিকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তিনি, পেশায় ছিলেন মসজিদের একজন ইমাম। পুলিশ বৃহস্পতিবার তাকে গ্রেফতার করে নেত্রকোনা আদালতে পাঠালে আদালতের বিচারক তার জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এদিকে ধর্ষনের শিকার মাদ্রাসার ওই ছাত্রীটিকে নারী পুলিশী প্রহরায় ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

বিজ্ঞাপন

গত বুধবার ৭ এপ্রিল ভোরে কেন্দুয়া উপজেলার মাসকা ইউনিয়নের দিঘলী গ্রামের একটি জঙ্গলে বাঁশঝারের নিচে এ ধর্ষনের ঘটনাটি ঘটে। মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয় কেন্দুয়া উপজেলার বলাইশিমুল ইউনিয়নের নোয়াদিয়া গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে মঞ্জুরুল হক। তার বয়স ২৫। দিঘলী গ্রামের ফকির বাড়ির জামে মসজিদের ইমাম হিসেবে তিনি চাকুরি নেন। মঞ্জুরুল হক মসজিদের ইমামতি করার পাশাপাশি স্থানীয় শিশুদের আরবি পড়াতেন।

এই সুবাধে মাদ্রাসার ছাত্রীটির সঙ্গে তার পরিচয় ঘটে। এক পর্যায়ে তিনি বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মাদ্রাসার ছাত্রীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেন। বুধবার ভোরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই ছাত্রীটিকে বাড়ির পেছনে জঙ্গলে ডেকে নিয়ে ধর্ষন করে। খবর পেয়ে কেন্দুয়া থানা পুলিশ বুধবার মঞ্জুরুল হক কে দিঘলী গ্রাম থেকে গ্রেফতার করে।

বিজ্ঞাপন

এ ঘটনায় বুধবার রাতে মাদ্রাসার ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে কেন্দুয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। কেন্দুয়া থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) হাবিবুল্লাহ খান বলেন, ধর্ষনের অভিযোগে মঞ্জুরুল হককে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হলে আদালতের বিচারক তার জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। এদিকে ধর্ষনের শিকার ছাত্রীটিকে নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো হলে ধর্ষন সংক্রান্ত তার ডাক্তারী পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে।

আরো পড়ুন: বারহাট্টায় শিলা-ঝড়, স্বপ্নভঙ্গ কৃষকের

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

Please enter your comment!
Please enter your name here

বিজ্ঞাপন

সর্বশেষ সংবাদ

x