ক্লিনিক আছে রাস্তা নাই, বাঁশের সাঁকো একমাত্র ভরসা

সাকের খান,মদন (নেত্রকোনা) সংবাদদাতাঃ নেত্রকোনার মদন উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নে রুদ্রশ্রী কমিউনিটি ক্লিনিকের যাওয়া আসার জন্য রাস্তার জায়গা থাকলেও রাস্তা নির্মাণ হয়নি। বাঁশের সাঁকো দিয়ে ক্লিনিকে যাওয়া-আসা করতে হয় এতে করে বয়স্ক নারী-পুরুষ ও শিশুরা অনেক সময় দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে।



জানা যায়, রুদ্রশ্রী কমিউনিটি ক্লিনিক এর জন্য রুদ্রশ্রী গ্রামের মৃত মোহাম্মদ আলী তালুকদার ৭ শতাংশ জমি দান করেছিলেন। এ জমির ওপর স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর ২০১৯ সনে ভবন নির্মাণ করে। কিন্তু যাতায়াত করার জন্য যে জায়গা নির্ধারন করা হয়েছে তার ওপর রাস্তা নির্মাণ করা হয়নি। ফলে শিশুসহ গর্ভবতী মহিলা এবং বয়স্ক নারী-পুরুষ ঝুঁকি নিয়ে ক্লিনিকে চিকিৎসা নিচ্ছে।

বৃহস্পতিবার সরোজমিনে গিয়ে দেখা যায়, তিয়শ্রী এবং ফতেপুর সংযোগ সড়কের পাশে রুদ্রশ্রী গ্রামে অবস্থিত রুদ্রশ্রী কমিউনিটি ক্লিনিক। ক্লিনিকে রাস্তার জন্য নির্ধারিত জায়গা থাকলেও রাস্তা নির্মাণ হয়নি, পাশে অন্যের রাস্তা থেকে সারাবছর বাঁশের সাঁকো দিয়ে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করতে হয়।



চিকিৎসা নিতে আসা রুদ্রশ্রী ও শিবপাশা গ্রামের কছিম উদ্দিন, সাহারা খাতুন, তুফান আলী একলাছ মিয়াসহ অনেকেই জানান, রুদ্রশ্রী গ্রামের কমিউনিটি ক্লিনিক হওয়ায় আমাদের দূরে গিয়ে চিকিৎসা নিতে হয় না। কিন্তু ক্লিনিকে চিকিৎসা নিতে এসে সারাবছর বাঁশের সাঁকো দিয়ে যাওয়া-আসা করতে গিয়ে অনেক সময় বয়স্ক মানুষ এবং গর্ভবতী নারীরা দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। সরকারের কাছে আমাদের দাবি এই রাস্তাটি নির্মাণ করে দেয়া হোক।

জমি দাতার পুত্রবধূ শিউলি আক্তার বলেন, আমার শ্বশুর কমিউনিটি ক্লিনিকের জন্য ৭ শতাংশ জায়গা দান করেছেন। ক্লিনিক নির্মাণ হলেও রাস্তা না হওয়ায় বয়স্ক মানুষ ও গর্ভবতী মহিলারা প্রায় দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। এ রাস্তাটি দ্রুত বাস্তবায়ন করলে ক্লিনিকে আসা লোকজনের দুর্ভোগ কমবে।



রুদ্রশ্রী কমিউনিটি ক্লিনিকের কমিউনিটি হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার (সিএইচসিপি) জামিল উদ্দিন বলেন, ক্লিনিকের রাস্তা না থাকায় অন্যের রাস্তা থেকে বাঁশের সাঁকো দিয়ে সারা বছর রোগীরা ঝুঁকি নিয়ে যাওয়া আসা করতে গিয়ে প্রায়ই দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। রাস্তাটি করা হলে সকলেই ভালো ভাবে চিকিৎসা নিতে পারত।

ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম চৌধুরী জানান, রুদ্রশ্রী কমিউনিটি ক্লিনিকে মাটি কেটে দেওয়ার জন্য আমি ভেকো পাঠিয়েছিলাম এখানকার কেউ মাটি না দেওয়া মাটি কাটা সম্ভব হয়নি।

মদন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ফখরুল হাসান চৌধুরী জানান, সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান কমিউনিটি ক্লিনিকের মাটি কেটে দিবে বলে আমাকে লিখিত আকারে আশ্বস্ত করেছে

আরো পড়ুন>> লুনেশ্বর ইউনিয়নের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা প্রচারনায় ব্যস্ত সময় পাড় করছেন

আপনার মতামত লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here