13.7 C
New York
মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২১

ঝিনাইগাতীতে এক মামলার আসামী স্বামীর মৃত্যু : মামলার ঘানি টানছে স্ত্রী, মেয়ে ও শ্যালক

বিজ্ঞাপন

মোহাম্মদ দুদু মল্লিক ঝিনাইগাতী (শেরপুর) সংবাদদাতাঃ

বিজ্ঞাপন

শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতীতে এক মামলার আসামী মৃত্যুর পর অন্যান্য আসামী স্ত্রী,মেয়ে ও শ্যালক মামলার ঘানি টেনে যাচ্ছে । ঘটনাটি ঘটেছে ঝিনাইগাতী উপজেলার কাংশা ইউনিয়নের নাচন মহুরি গ্রামের মৃত সাইজ উদ্দিনের ছেলে মো: আ: ছালাম বাদী হয়ে গত ২১/৯/১৬ ইং তারিখে মৃত সজল হকের ছেলে আসাদুল্লাহ(৪৫) সামসুল হকের ছেলে চাঁন মিয়া (৪২) চাঁন মিয়ার স্ত্রী মহুয়া বেগম(৩৭) ও চাঁন মিয়ার মেয়ে কলেজ পড়–য়া বিউটি বেগম (২০) সহ ৪জন কে আসামী করে ৩২৩/৩২৫/৩০৭/৫০৬/১১৪ ধারায় মামলা নং ১১ ঝিনাইগাতী থানায় একটি মামলা  দ্বায়ের করেন । তৎকালিন ওসি মিজানুর রহমান মামলাটি ঝিনাইগাতী থানার এস,আই খোকন চন্দ্র সরকারকে তদন্তভার প্রদান করেন । তদন্তকালে বাদীর অভিযোগ প্রাথমিক ভাবে সত্যতা পেয়ে বিজ্ঞ আদালতে আসামীদের বিরুদ্ধে গত ২/২/২০১৭ইং সালে চার্জসিট প্রদান করেন । চার্জসিট প্রদানের কিছুদিন পর  সামছুল হকের ছেলে আসামী চাঁন মিয়া নিজ বাড়ির ঘোয়াল ঘরে মৃত্যু বরণ করলে তার লাশ পাওয়া যায় ।

৩নং আসামী মহুয়া বেগমের স্বামী ২নং আসামীর মৃত্যুতে ওই মামলার আসামী স্ত্রী মেয়ে ও শ্যালক মামলার ঘানি আজও টেনে যাচ্ছে । মামলার বিবরণে জানা গেছে একটি তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এ মামলা হয় । বাদীর ট্রাক্টর দিয়ে ১নং আসামী আসাদুল্লাহ ওই সময়ে জমি হালচাষ করিয়ে ৬ হাজার টাকা বাকি রাখে । মাত্র ৬ হাজার টাকা দেই দিচ্ছি বলে তালবাহনা করতে থাকে । এই টাকা বাদীর ছেলে ফারুক মিয়া গত ১৬/৯/১৬ইং তারিখে টাকা চাইতে গেলে শুরু হয় তর্ক বিতর্ক এক পর্যায়ে ফারুককে মারপিট করে গুরুতর আহত অবস্থায় ময়মনসিংহ মিডিকেল কলেজে ভর্তি হয়ে চিকিৎশা গ্রহণ করে বলে মামলার সূত্রে জানা যায় । ১নং আসামী আসাদুল্লাহ জানায় এই মামলার কারণে আমরা নি:স্ব হয়ে পড়েছি বোন জামাই চান মিয়ার মৃত্যু হয়েছে বোন আমি ভাগনী মামলায় নিয়মিত হাজিরা দিয়ে আসছি । আমাদের বিরুদ্ধে চক্রান্ত করে  যে মিথ্যা মামলা হয়েছে তা থেকে আমরা অব্যহতি পেলে বোন ও ভাগনীকে নিয়ে একটু শান্তিতে থাকতে পারতাম । বাদী হালচাষের ৬ হাজার টাকা পায় বলে মামলায় উল্লেখ করেছে যাহা সত্য নয় । আমাদের উভয়ের বাড়ি পাশ্ববর্তী ও একই এলাকা তিলকে তাল করে মামলা দিয়ে হয়রাণী করে যাচ্ছে  ।

বিজ্ঞাপন

এ প্রতিনিধি মামলার বাদী আ: ছালামের ০১৯২২৩৪৭৯৩৬ মোবাইলে বার বার চেষ্টা করা হলেও মোবাইল রিসিভ না করার ফলে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি ।  মামলার তদন্ত কর্মকর্তা খোকন চন্দ্র সরকার বলেন আমি মামলা তদন্ত করে যা পেয়েছি তা আদালতে প্রেরণ করেছি বিজ্ঞ আদালতে মামলাটি বিচারাধীন রয়েছে ।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সর্বশেষ সংবাদ

বিজ্ঞাপন
x