ঠাকুরগাঁওয়ে আত্মহত্যার চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে মানসিক ভারসাম্যহীন এখন শিক্ষার্থী - durjoy bangla | দুর্জয় বাংলা ঠাকুরগাঁওয়ে আত্মহত্যার চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে মানসিক ভারসাম্যহীন এখন শিক্ষার্থী - durjoy bangla | দুর্জয় বাংলা
  1. durjoybangla24@gmail.com : durjoy bangla : durjoy bangla
  2. afzalhossain.bokshi13@gmail.com : Afjal Sharif : Afjal Sharif
  3. aponsordar122@gmail.com : Apon Sordar : Apon Sordar
  4. awal.thakurgaon2020@gmail.com : abdul awal : abdul awal
  5. sheblikhan56@gmail.com : Shebli Shadik Khan : Shebli Shadik Khan
  6. jahangirfa@yahoo.om : Jahangir Alam : Jahangir Alam
  7. mitudailybijoy2017@gmail.com : শারমীন সুলতানা মিতু : শারমীন সুলতানা মিতু
  8. nasimsarder84@gmail.com : Nasim Ahmed Riyad : Nasim Ahmed Riyad
  9. netfa1999@gmail.com : faruk ahemed : faruk ahemed
  10. rtipu71@gmail.com : razib :
  11. absrone702@gmail.com : abs rone : abs rone
  12. sumonpatwary2050@gmail.com : saiful : Saiful Islan
  13. animashd20@gmail.com : Animas Das : Animas Das
  14. Shorifsalehinbd24@gmail.com : Shorif salehin : Shorif salehin
  15. sbskendua@gmail.com : Samorendra Bishow Sorma : Samorendra Bishow Sorma
  16. swapan.das656@gmail.com : Swapan Des : Swapan Des
মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ০৩:১০ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
ময়মনসিংহ বিভাগে ৩১৭ জনের পরীক্ষায় করোনা সনাক্ত-১৬, মোট আক্রান্ত ৮৭৬, সুস্থ্য ৩১২ জন  তারাকান্দায় ঈদের দিন আগুনে ভুষ্মীভূত ৪ দোকান মাগুরায় ঈদের নামাজ নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত-১০,শতাধিক বাড়ি ভাঙচুর টঙ্গীবাড়ীতে গলায় ফাঁস দিয়ে যুবকের আত্নহত্যা দরিদ্র ও অসহায় মানুষের পাশে বিত্তবানদের দাঁড়ানোর আহ্বান জানালেন রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ। পটুয়াখালীর দশমিনায় গৃহবধূর আত্মহত্যা ঠাকুরগাঁও বাসীকে সাংবাদিক আব্দুল আউয়াল এর ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছাঃঃঈদ মোবারক সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে নওগাঁয় ঈদের জামাত আদায় বিডিআইটি জোনের পক্ষ থেকে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা দুর্জয় বাংলার পক্ষ থেকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা ও ঈদ মোবারক




ঠাকুরগাঁওয়ে আত্মহত্যার চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে মানসিক ভারসাম্যহীন এখন শিক্ষার্থী

  • প্রকাশের সময় | বুধবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
  • ২৪৬ বার পঠিত

আব্দুল আউয়াল ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায় মোবাইলে কথার বলার অভিযোগে শিক্ষকের দ্বারা লাঞ্ছিত হওয়ার পর এক স্কুলছাত্রী আত্মহত্যার চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে এখন মাসনিক ভারসাম্যহীন হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।



ঘটনাটি ওই উপজেলার চাড়োল ইউনিয়নের ছোট সিংগিয়া গ্রামে। রবিবার দুপুরে এমনই অভিযোগ করেন ওই শিক্ষার্থীর মা সাহেরা বেগম (৪৫)।

আশা মনি (১২) ছোট সিংগিয়া গ্রামের লতিফর রহমানের মেয়ে এবং সে লাহিড়ী ফাযিল (ডিগ্রী) মাদরাসার ৭ম শ্রেণির ছাত্রী।

অভিযুক্ত ফিরোজা বেগম লাহিড়ী ফাযিল (ডিগ্রী) মাদরাসায় সহকারী শিক্ষক হিসেবে চাকরি করছেন।




এদিকে ঘটনার ৬ মাসের মাথায় বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আশা মনির কাছ থেকে জব্দ করা মোবাইল ফোনটি বালিয়াডাঙ্গী থানায় হস্তান্তর করেছেন এবং একটি সাধারণ ডায়েরিও করেছেন মাদরাসা কর্তৃপক্ষ বলে জানান ওসি মোসাব্বেরুল হক।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কৃষক লতিফর রহমানের ৪ মেয়ের মধ্যে আশা মনি ছিল সবার ছোট। বাকি ৩ মেয়ের বিয়ে হয়েছে। মা সাহেরা বেগম মানুষের বাড়িতে দিনমজুর হিসেবে কাজ করেন। সংসারে ছিল তাদের অনেক অভাব। ছোট মেয়েটিকে লেখাপড়া শিখিয়ে একটি চাকরি করানোর ইচ্ছে ছিল পরিবারটির। আশা মনি এখন মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। এলাকার মানুষজনও বিষয়টি নিয়ে খুবই মর্মাহত।

শিক্ষার্থীর মা সাহেরা বেগম অভিযোগ করে বলেন, গত ১০ মার্চ সকালে প্রতিদিনের মত আমার মেয়ে আশা মনি মাদরাসায় যায়। দুপুর সাড়ে ৩টার দিকে মাদরাসা থেকে আশা মনি বাড়িতে চলে আসে; তখন তার মন খারাপ ছিল। কিছুক্ষণ পর মাদরাসা থেকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে জানানো হয়, আমার মেয়েকে মাদরাসার হলরুমে লুকিয়ে ফোনে কথা বলার সময় আটক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ফিরোজা বেগম এবং মোবাইল ফোনটি জব্দ করা হয়।




সাহেরা বেগম বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে বাড়িতে মেয়েকে জিজ্ঞাসা করলে জানায় তার বান্ধবীর মোবাইল ফোন নিয়ে সে চাপাচাপি করছিল; এসময় শিক্ষক ফিরোজা বেগম তাকে ফোন সহ ধরে এবং তাকে বেধরক চরথাপ্পর মারে। পরে সে বাড়িতে চলে আসে।

তিনি বলেন, বিষয়গুলো জানার পর মেয়েকে নিয়ে বাড়ির পাশে গরুর জন্য খাস কাটতে যাই; এসময় পানি খাওয়ার কথা বলে আশা মনি বাড়িতে এসে ঘরের মধ্যে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস লাগায়। বাড়িতে গিয়ে দেখা মাত্র চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন ছুটে আসলে আশা মনিকে মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ৪ চিকিৎসা দেয় হয়। অবস্থা খারাপ হলে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৪দিন চিকিৎসা দেয়ার পর বাড়িতে আনা হয়।



শিক্ষকের দ্বারা লাঞ্ছিত হওয়ায় মেয়েটি দু:খ পেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে বলে অভিযোগ স্কুলছাত্রীর মায়ের।

মা সাহেরা বেগম বলেন, আশা মনিকে সুস্থ করার জন্য ধার-মহাজন করে ৬০ হাজার টাকা দিয়ে যতটুকু পেরেছি চিকিৎসা করেছি; কিন্তু মেয়েটি আমার স্বাভাবিক হয়ে উঠতে পারেনি; সে মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছে।

বাবা লতিফর রহমান বলেন, আশা মনিকে চরথাপ্পর মারার অভিযোগ নিয়ে মাদরাসায় গিয়েছিলাম; বিষয়টি নিয়ে মাদরাসায় শালিস বৈঠকের কথা ছিল; পরবর্তীতে এটি নিয়ে কেউ আর সাড়া দেয়নি। টাকা পয়সার অভাবে মামলাও করতে পারছি না। তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চেয়েছেন।



আশা মনির সাথে কথা বলার চেষ্টা করা হলে সে খাতায় লিখে অভিযোগ করেন মাদরাসার শিক্ষক ফিরোজা বেগম তাকে মারপিট করেছে; এ লাঞ্ছনা সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যার পথ বেঁছে নিয়েছিল।

আশা মনির সহপাঠি নারগিস আক্তার বলেন, প্রতিদিন আশা মনি ও আমি মাদরাসায় যাই; সেদিন ফোনের ঝামেলা নিয়ে আশা মনিকে চরথাপ্পর দেয় শিক্ষক ফিরোজা বেগম। বাড়িতে ফিরে আশা মনি আত্মহত্যার চেষ্টা করে।



স্থানীয় বাসিন্দা কহিনুর বেগম ও সেলিনা আক্তার বলেন, শিক্ষকের লাঞ্ছনা সাইতে না পেয়ে আশা মনি আত্মহত্যার চেষ্টা করে। আজ মেয়েটি মানষিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েছে। এ দায় কে নেবে? একজন শিক্ষকের আচরণ এমন হতে পারেনা।

অভিযুক্ত মাদরাসার সহকারী শিক্ষক ফিরোজা বেগমের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আশা মনিকে মোবাইলে কথার বলার সময় ধরা হয়; তারপর বিষয়টি তার পরিবারকে জানানো হয়। চরথাপ্পর মারা হয়েছে এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, আমি আশা মনিকে কোন চরথাপ্পর মারিনি।

মাদরাসার অধ্যক্ষ ফজলে রাব্বী মো: নুরুল ইসলাম বলেন, ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্ত মতে গত ৪ সেপ্টেম্বর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে এবং আশা মনির ফোনটি থানায় জমা দেয়া হয়েছে। শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এ ধরনের কাজ আমার শিক্ষক কখনই করতে পারেনা।




ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ আলী বলেন, কিছুদিন আগে আমাকে মাদরাসা থেকে বিষয়টি জানানো হয়। তারপর ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্ত মতে মাদরাসায় অধ্যক্ষ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে এবং মোবাইল ফোনটি থানায় জমা দেয়। আমরা শুনেছি মেয়েটা খারাপ। সব বিষয়গুলো বিবেচনা করে মেয়েটিকে মাদরাসা থেকে টিসি দিয়ে বের করে দেয়া হয়েছে।



এ বিষয়ে বালিয়াডাঙ্গী থানার ওসি মোসাব্বেরুল হক বলেন, মাদরাসা থেকে একটি সাধারণ ডায়েরি হয়েছে এবং একটি ফোন জমা দিয়েছে মাদরাসা কর্তৃপক্ষ। শিক্ষার্থীকে চরথাপ্পর মারা হয়েছে জানি না; আপনার কাছ থেকে জানলাম। বিষয়টি খোঁজখবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আপনার মতামত লিখুনঃ
নিউজটি সেয়ার করার জন্য অনুরোধ রইল!
এই জাতীয় আরো সংবাদ







©২০১৩-২০২০ সর্বস্তত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | দুর্জয় বাংলা

Theme Customized By durjoybangla
বিজ্ঞপ্তি