13.7 C
New York
সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২১

থানচিতে বন্যা প্লাবিত পাড়ার মানুষ ফিরছে ঘরে!

মোঃ শহীদুল ইসলাম রানা,বান্দরবান জেলা প্রতিনিধি

বিজ্ঞাপন

গত বৃহস্পতিবার সাঙ্গু নদীর উজানে থানচি পয়েন্টের পানির উচ্চতা প্রায় ২০ ফুট নেমে গেছে। বিপৎসীমার অনেক নিচ দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। এতে বন্যা পরিস্থিতির পরিবর্তন ঘটেছে উপজেলা বলিপাড়া ইউনিয়নের বাগান পাড়া ও হিন্দু পাড়াসহ আশেপাশে ভারী বর্ষণে নিম্নাঞ্চলে এলাকার। তবে শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত থানচি সদরের সাথে দুর্গম তিন্দু ও রেমাক্রী ইউনিয়নের নৌ যোগাযোগ বন্ধ আছে। পুরোপুরি স্বাভাবিক অবস্থা ফিরতে আরো দুই-এক দিন সময় প্রয়োজন হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয়রা।

বিজ্ঞাপন

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান থোয়াইহ্লামং জানান, গত শুক্রবার দুপুরে থেকে টানা ভারী বৃষ্টির কমে যায়। এতে সাঙ্গু নদীর উজানে ও নিম্নাঞ্চল এলাকায় বন্যা পানি কমতে শুরু করে পরিস্থিতি উন্নতি হওয়ায় স্বাভাবিক অবস্থা গ্রামের ফিরেছে প্লাবিত নিম্নাঞ্চল বসবাস পরিবারগুলো।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আতাউল গনি ওসমানী জানান, গত ৩ দিনের বলিপাড়া ইউনিয়নের বাগান পাড়া, হিন্দু পাড়া ও উপজেলা বিভিন্ন স্থানে নিম্নাঞ্চলে ভারী বর্ষণে বন্যা প্লাবিত হয়। তবে উপজেলা কোথাও বড় ধরনের বিপর্যয় ঘটেনি।

বিজ্ঞাপন

তিনি আরো বলেন, উপজেলার ৪টি মধ্যে ২টি সরকারে আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান করার ৮২ পরিবারকে শুকনো খাবার, মশার কয়েল, তেল, লবণ, মোমবাতি, মুড়ি, চিড়া, খিচুড়িসহ খাদ্য সামগ্রী সহায়তা দিয়ে রাখা হয়েছিল বলে জানান তিনি।
বান্দরবানে পাহাড়ে বন্যা পরিস্থিতি উন্নতি হওয়ায় বাড়ি ফিরতে শুরু করেছে থানচি উপজেলা নিম্নাঞ্চলে বন্যায় প্লাবিত কবলিত পড়ার পরিবারের মানুষরা। অক্ষত বাড়িঘরে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে শুরু করেছে । উপজেলায় টানা ভারী বর্ষণের ফলে বুধ- বৃহস্পতিবার দুই দিনের সরকারী আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নেয় অনেক পরিবার। বর্ষণ থেমে যাওয়ার শুক্রবার বিকাল থেকে নিজ গ্রামের ফিরে অক্ষত বাড়িঘরে জীবন-যাপন করতে শুরু করছে আশ্রিত পরিবারগুলো। বান্দরবান থানচি সড়কে যানচলাচল যোগাযোগ ব্যাবস্থা স্বাভাবিক হয়েছে।

আরও পড়ুন: কেন্দুয়ায় প্রধানমন্ত্রীর ঘর উপকারভোগীদের সাথে এমপি অসীম কুমার উকিলের মতবিনিময়

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সর্বশেষ সংবাদ

বিজ্ঞাপন
x