নাগরপুরে ধর্ষণের প্রতিবাদে মানববন্ধন

নাগরপুর প্রতিনিধিঃ
টাঙ্গাইলের নাগরপুরে প্রতারণা, ধর্ষণ ও পিতৃ পরিচয়ের দাবীতে মানববন্ধন করেছে শিশু সুজায়েত ও তার মা। আজ শুক্রবার ( ১৭ জানুয়ারী) সকালে উপজেলা মোড়ে ধর্ষিতা, শিশু সুজায়েত সহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যবৃন্দ এ মানববন্ধন করে। পরিবার সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘ ১ যুগ অতিবাহিত হলেও ন্যায় বিচার পাননি উপজেলার বিষমপুর গ্রামের মৃত সামাদ সিকদারের মেয়ে ছামিনা খাতুন।




প্রতিবেশী মৃত খালেক সিকদারের ছেলে অভিযুক্ত সজল সিকদার দীর্ঘ ১ যুগ আগে প্রতিবেশী ছামিনা খাতুনকে একাধিক বার ধর্ষন করে। ধর্ষনের ফলে গর্ভবতী হয়ে পড়ে ছামিনা। পরে গর্ভবতী মা ছামিনার কোল আলো করে আসে এক পুত্রসন্তান। সন্তানের নাম রাখেন সুজায়েত। সুজায়েত এখন স্থানীয় স্কুলে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে পড়ছে। পিতৃপরিচয়হীন ও পিতার স্নেহ হতে বঞ্চিত সুজায়েত মাথা উচু করে বাঁচতে চায়। ছোট্ট শিশু সুজায়েত বড় হয়ে ডাক্তার হতে চায়। ডাক্তার হয়ে দেশের মানুষের সেবা করার ইচ্ছে তার।




এদিকে ন্যায় বিচারের আশায় তীর্থের কাকের মত একমাত্র ছেলে নিয়ে অতি কষ্টে দিন কাটাচ্ছে ছামিনা। দারিদ্রতা ও সমাজের রক্তচক্ষুর কাছে পরাজিত না হয়ে নিজের অদম্য ইচ্ছে শক্তিতে পিতৃ পরিচয়হীন সুজায়েত এর পড়ালেখার খরচ সহ সংসারের খরচ যোগাতে জীবনের প্রতিটি মূহুর্তেই সংগ্রাম করে যাচ্ছে অধিকার বঞ্চিত এক স্ত্রী। শত অভাব অভিযোগের পরও থেমে থাকেনি তার পথ চলা। সে বাঁশের তৈরী টুকরী, ঝাকা, চালুন সহ বিভিন্ন প্রকার হস্তশিল্পের কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করছে।




দেশের আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল ছামিনা ও তার পরিবার সুবিচারের আশায় সজলসহ চারজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে গত ২০০৮ সালে ১ম শ্রেনীর ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন মা ছামিনা খাতুন। সি আর ৩৪/০৮ নং মামলাটি বিজ্ঞ আদালত আমলে নিয়ে নারী ও শিশু ৩৪/০৮ নং এ পরিবর্তিত হয়।

আরও পড়ুন>> স্বদেশী’র ফোক গান

আপনার মতামত লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here