1. durjoybangla24@gmail.com : durjoy bangla : durjoy bangla
  2. afzalhossain.bokshi13@gmail.com : Afjal Sharif : Afjal Sharif
  3. aponsordar122@gmail.com : Apon Sordar : Apon Sordar
  4. awal.thakurgaon2020@gmail.com : abdul awal : abdul awal
  5. sheblikhan56@gmail.com : Shebli Shadik Khan : Shebli Shadik Khan
  6. jahangirfa@yahoo.om : Jahangir Alam : Jahangir Alam
  7. mitudailybijoy2017@gmail.com : শারমীন সুলতানা মিতু : শারমীন সুলতানা মিতু
  8. nasimsarder84@gmail.com : Nasim Ahmed Riyad : Nasim Ahmed Riyad
  9. netfa1999@gmail.com : faruk ahemed : faruk ahemed
  10. mdsayedhossain5@gmail.com : Md Sayed Hossain : Md Sayed Hossain
  11. absrone702@gmail.com : abs rone : abs rone
  12. sumonpatwary2050@gmail.com : saiful : Saiful Islan
  13. animashd20@gmail.com : Animas Das : Animas Das
  14. Shorifsalehinbd24@gmail.com : Shorif salehin : Shorif salehin
  15. sbskendua@gmail.com : Samorendra Bishow Sorma : Samorendra Bishow Sorma
  16. swapan.das656@gmail.com : Swapan Des : Swapan Des
বাঁশখালীতে মুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা না দিয়ে দাপন, প্রতিবাদে মানববন্ধন, তদন্ত কমিটি গঠন - durjoy bangla | দুর্জয় বাংলা
শুক্রবার, ১৪ অগাস্ট ২০২০, ১১:৩৭ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ




বাঁশখালীতে মুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা না দিয়ে দাপন, প্রতিবাদে মানববন্ধন, তদন্ত কমিটি গঠন

হায়দার আলী বিশেষ প্রতিনিধি
  • বুধবার, ২৯ জুলাই ২০২০, ২:১৭ পূর্বাহ্ণ
  • ২৫০ বার পঠিত
বাঁশখালীতে মুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা না দিয়ে দাপন, প্রতিবাদে মানববন্ধন

চট্টগ্রামের বাঁশখালীর কৃতি সন্তান, প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা, উপজেলা আওয়ামীলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ আলী আশরাফ কে শেষ বিদায়ে গার্ড অব অনার প্রদান করতে বিলম্ব হওয়ায় মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তানেরা ও স্থানীয় জনগণ ক্ষুব্ধ হয়ে স্হানীয় জনপ্রতিনিধি সহ উপজেলা প্রশাসন কে দায়ী করে উপজেলা পরিষদের সামনে এক মানবন্ধন ও প্রতিবাদসভার আয়োজন করেছে।

মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভায়,প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ আলী আশরাফ এর সন্তানেরা ও বক্তারা বলেন, একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার শেষ বিদায়ে রাষ্ট্রীয় সম্মানে দাপন না হওয়ায় তারা হতাশ হয়েছেন এবং এই ন্যাক্কার জনক ঘটনার জন্য স্হানীয় জনপ্রতিনিধি বাঁশখালীর সাংসদ আলহাজ্ব মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী এমপি কে ও উপজেলা প্রশাসন কে দায়ী করেন এবং এই ঘটনার সুষ্ট বিচারের দাবী জানান।

জানা যায়, “বঙ্গবন্ধু” হত্যার বাঁশখালীতে প্রথম প্রতিবাদকারী মুক্তিযোদ্ধা মৌলভী ছৈয়দের বড় ভাই মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ আলী আশরাফ (৮৫) গত ২৬ জুলাই রবিবার দুপুরে চট্টগ্রাম মেডিকেলে ইন্তেকাল করেন। ২৭ জুলাই সোমবার সকাল ১১ টায় তার জানাযার সময় নির্ধারণ করা হলেও পুলিশ, মুক্তিযোদ্ধা সহ অন্যান্যরা উপস্থিত হন।

তবে প্রশাসনের প্রতিনিধি সহকারী কমিশনার ভূমি মোঃ আতিকুর রহমান পৌছেন জানাজার পর। এই সময় গার্ড অব অনার প্রদান করতে চাইলে স্থানীয়রা অস্বীকৃতি জানায় এবং জনগণ ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোমেনা আক্তার সহ প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তারা পরিবারের সদস্যদের সাথে কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ ও কবর জিয়ারত করেন।

এ বিষয়ে মুক্তিযোদ্ধা ডা আলী আশারাফের ছেলে জহির উদ্দিন বাবর বলেন, আমার পিতার প্রতি রাষ্ট্রীয় সম্মান জানাতে কেন এ ধরনের গড়িমসি তা জনগণ বিচার করবে। বাঁশখালী উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক আবুল হাশেম বলেন, আমরা উপজেলা প্রশাসনকে জানাজার সময় জানিয়েছি। তারপরেও কেন তারা সঠিক সময়ে উপস্থিত হল না তা আমাদের কাছে বোধগম্য নয়।

এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ আতিউর রহমান বলেন,জানাযায় অসংখ্য মানুষের আগমন এবং রাস্তাটি সরু হওয়ায় আমার বহনকারী গাড়িটি ভিতরে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়নি। ফলে প্রায় এক কিলোমিটার পথ হাঁটতে হয়,এতে পৌছাতে ২৫ মিনিট দেরি হয়। আমি গার্ড অব অনার জানাতে চাইলে তারা বিলম্বের কারণে অস্বীকৃতি জানায়।

বাঁশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোমেনা আক্তার বলেন,আমি পরিষদে অন্য একটি জরুরি মিটিং থাকায় যথাযথ সময়ে যেতে না পারলেও পরে সেখানে পৌঁছি তখন দাফন সম্পন্ন হয়ে যায়। অতঃপর পরিবারের সদস্যদের সম্মতিতে কবরে পুষ্পস্তবক ও কবর জেয়ারত করে চলে আসি। যথাসময়ে পৌঁছাতে না পারায় দুঃখ প্রকাশ করছি।

এ সময় সহকারী কমিশনায় (ভুমি) মোঃ আতিকুর রহমান, বাঁশখালী থানার ওসি তদন্ত মোঃ কামাল উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আবদুল গফুর, মুক্তিযোদ্ধা আবদুর রাজ্জাক, অধ্যাপক আবুল হাশেম মানিক,আহমদ ছফা, শেখেরখীল ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইয়াছিন, চাম্বল ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুল হক চৌধুরীসহ পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড মহানগর কমিটি। নেতৃবৃন্দ এ ঘটনার সাথে প্রশাসনের যারা জড়িত তাদেরকে অবিলম্বে আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন। এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার না হলে কঠিন কর্মসূচি ঘোষণার হুঁশিয়ারি দেন নেতৃবৃন্দ।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় নেতা মোহাম্মদ সরওয়ার আলম চৌধুরী মনি,মহানগর কমিটির আহ্বায়ক শাহেদ মুরাদ সাকু,যুগ্ন আহবায়ক মোঃ মিজানুর রহমান সজিব, মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন,সদস্য সচিব কাজী মোহাম্মদ রাজিশ ইমরান প্রমুখ।

এ ঘটনায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানা গেছে। জেলা প্রশাসনের তদন্ত কমিটি বাংলা নিউজকে জানায়, মুক্তিযোদ্ধা ডাক্তার আলী আশরাফ কে গার্ড অব অনার ছাড়াই দাফনের ঘটনায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ড. বদিউল আলমকে এক
কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ কামাল হোসেন জানান,বাঁশখালীর ঘটনা তদন্তে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ড. বদিউল আলমকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের সঙ্গে কথা বলবেন।অভিযোগ তদন্ত করে দেখবেন। তাকে এক কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে

আপনার মতামত লিখুনঃ
নিউজটি সেয়ার করার জন্য অনুরোধ রইল!
এই জাতীয় আরো সংবাদ
durjoybangla.conlm_৮ বছরে







©২০১৩-২০২০ সর্বস্তত্ব সংরক্ষিত | দুর্জয় বাংলা

কারিগরি সহযোগিতায় দুর্জয় বাংলা