বাউফলে বহুতল ভবন নির্মাণে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ

রিয়াজ মাহমুদ, পটুয়াখালী প্রতিনিধি:

পটুয়াখালীর বাউফলে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতরের আওতায় ১ কোটি ১১ লাখ টাকা ব্যয়ে কালাইয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের একটি বহুতল ভবন নির্মাণ কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
আজ শনিবার দুপুরে সরেজমিনে দেখা গেছে, বেইজ ঢালাইতে নি¤œমানের মরা সাদা পাথর, নি¤œমানের সিমেন্ট ও বালু ব্যবহার করা হয়েছে। বেইজ ঢালাইয়ের পর বালু দিয়ে ভড়াট করার কথা থাকলেও তা ভড়াট করা হয়েছে মাটি দিয়ে। শর্ট কলামের উপরে গ্রেড ভীম ও কলাম ঢালাইর জন্য স্টীলের সাটারিং ব্যবহার করার কথা থাকলেও তা করা হয়নি। কাঠের সাটারিং দিয়ে ঢালাইয়ের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ভবনের বেইজ থেকে উত্তোলনকৃত বিপুল পরিমান মাটি বাইরে বিক্রি করে দিয়েছেন। পরিদর্শনকালে সংশ্লিষ্ট দফতরের কোন কার্য সহকারী ও উপ সহকারী প্রকৌশলীকে পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফেরদৌসী শিরিন বলেন,‘ প্রথমত তাদের কাজে যা ধরা আছে সেটা দিয়ে করবেন। স্টীলের সাটারিং দিয়ে করার কথা থাকলে সেটা দিয়েই করবেন। সেটা আপনি জানতে পারবেন। আমি বর্তমানে ঢাকা আছি। দ্বিতীয়ত গ্রেডভীম পর্যন্ত মাটি ভড়াট করার কথা। এর পরে বালু দিয়ে ভড়াট করবেন। তৃতীয়ত, মাটি তারা নিয়ে যাচ্ছেন, ঠিকাদার ফরিদ ভাই মাটি নিয়ে যাচ্ছেন। পরে তিনি বালু দিয়ে ভড়াট করে দিবেন।’

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, সোনালী এন্টার প্রাইজ নামের একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কালাইয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের চারতলা ভবনের এই নির্মাণ কাজ করছেন। ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে দরপত্র আহবান করা হয়। ১২৬ ফুট লম্বা ও ৪৬ ফুট প্রসস্থ এই বিদ্যালয় ভবনে নির্মাণ কাজ ওই অর্থ বছরের শুরু এবং শেষ করার কথা থাকলেও তা করা হয়নি। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান চলতি বছর অক্টোবর মাসের প্রথম সপ্তাহে কাজ শুরু করেছেন।



নির্মাণ কাজের দেখভালের দায়িত্বে থাকা প্রতিনিধি মাসুদ চৌকিদার বলেন,‘ কাজ সঠিক নিয়মে করা হচ্ছে। কোন অনিয়ম করা হচ্ছেনা।’
নির্মাণ কাজের তদারকির দায়িত্বে থাকা উপসহকারী প্রকৌশলী মোঃ বাবর হোসেন বলেন,‘ স্টীমেট অনুযায়ি কাজ হচ্ছে। কোন অনিয়ম করা হচ্ছেনা। স্টীলের সাটারিংয়ের পরিবর্তে কাঠের সাটারিং ব্যবহার করা হচ্ছে কেন? এই প্রশ্ন করা হলে তিনি কোন সদোত্তর দিতে পারেননি।

আরো পড়ুন: নকলায় নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত

আপনার মতামত লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here