বাগমারায় তিন দিনের ব্যবধানে পেঁয়াজের কেজি বেড়েছে সত্তর টাকা

নাজিম হাসান,রাজশাহী প্রতিনিধি:
রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায় প্রশাসনের বাজার মনিটরিং না থাকায় হাট-বাজারে গত তিন দিনের ব্যবধানে পেঁয়াজের প্রতি কেজি দাম বেড়েছে সত্তর টাকা। কয়েকটি হাট-বাজার ঘুরে দেখা গেছে গত তিন আগে পেঁয়াজ ছিল আশি থেকে নব্বই টাকা কেজি। গতকাল শনিবার উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজার ঘুরে দেখা গেছে পেঁয়াজের কেজি দেড়শ থেকে একশ ষাট টাকা কেজি। আকারভেদে পেঁয়াজের দাম ওঠানামা করছে ১৫০ থেকে ১৬০ টাকায়। তবে হঠাৎ করেই পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় বাজার করতে এসে হোঁচট খেয়েছেন ক্রেতারা।



উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে উপজেলায় চলতি মৌসূমে এক হাজার আটশ হেক্টর জমিতে কন্দ জাতের পেঁয়াজের আবাদ হয়েছে। ক্ষেত থেকে নতুন পেঁয়াজ উঠতে আরম্ভ করলেও বাজার দর বেশী হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন ক্রেতারা। খোলা ভাবে গ্রাহকদের মাঝে টিসিবির পেঁয়াজ বিক্রি অব্যাহত থাকলেও দেশীয় জাতের পেঁয়াজের দাম বেশী হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন ক্রেতা সাধারন মানুষ জনেরা। ক্রেতারা ভাবছিলেন ক্ষেতের নতুন পেঁয়াজ বাজারে উঠলে বাজার দর স্বাভাবিক হবে। কিন্ত নতুন পেঁয়াজে চাষীরা লাভবান হলেও বিপাকে পড়েছেন ক্রেতারা। উপজেলার বাসুপাড়া ইউনিয়নের সগুনা গ্রামের হাশেম আলী জানান, বাজারে কয়েকদিন আগেই পেঁয়াজের বাজার দর কম ছিল। তিন দিনের ব্যবধানে কেজি প্রতি বেড়েছে সত্বর থেকে আশি টাকা।



উপজেলার ভবানীগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী আমিনুল ইসলাম বলেন, গত তিন দিন আগেই পেঁয়াজের বাজার দর কেজি প্রতি আশি থেকে নব্বই টাকা ছিল কিন্ত হঠাৎ করেই তা বেড়ে একশ পঞ্চাশ থেকে একশ ষাট টাকা কেজি দর হয়েছে। তাই দাম বাড়ায় চাহিদার তুলনায় কম পেঁয়াজ কিনেছেন অনেকে। হঠাৎ করেই পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি বাজারে এসে হোঁচট খেয়েছেন ক্রেতারা।



দাম বাড়ায় চাহিদার তুলনায় কম পেঁয়াজ কিনেছেন অনেকে। পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধির কারণ হিসেবে ব্যবসায়ীরা জানান, বাজারে পেঁয়াজের সরবরাহ কম। গত কয়েকদিনের শৈত্যপ্রবাহে জমির পেঁয়াজ কিছুটা নষ্ট হয়েছে। এ কারণে বাজারে পেঁয়াজের ঘাটতির সৃষ্টি করেছে। তবে পেঁয়াজের বাজার দর অচিরে স্বাভাবিক রাখতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন উপজেলার সাধারন ক্রেতারা।

আপনার মতামত লিখুন

Please enter your comment!
Please enter your name here