13.7 C
New York
সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২১

মোহনগঞ্জে সরকারী ঘরের মালিকানা নিয়ে বিরোধ

মাসুম আহম্মেদ, মোহনগঞ্জ (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি :

বিজ্ঞাপন

মোহনগঞ্জে সরকারী ঘরের মালিকানা নিয়ে বিরোধের সৃষ্টি হয়েছে । মাঘান সিয়াধার ইউনিয়নের মানশ্রী গ্রামের আবদুল মমিন ও একই গ্রামের আব্দুল খালেক এ দুপক্ষের মধ্যে দুজনই ঘরটির মালিকানা দাবী করছেন। মালিকানা বিরোধ মিটিয়ে ঘরের সরকারী তালিকাভূক্ত মালিক আব্দুল খালেক কে ঘর বুঝিয়ে দিতে হস্তক্ষেপ করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফুজ্জামান ও সহকারী কমিশনার ভূমি নাজনীন সুলতানা।

বিজ্ঞাপন

তারা রোববার মানশ্রী ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ঘরে বর্তমানে বসবাসকারী আব্দুল মমিনকে ঘর ছেড়ে দেয়ার কথা বলেন। সোমবার দুপুরে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান আবুবকর ছিদ্দিক আব্দুল মমিনের তালা ফেলে আব্দুল খালেকের তালা ঘরে ঝুলিয়ে মালিকানা বুঝিয়ে দেন। এতে আব্দুল মমিন ক্ষুব্দ হয়ে জানান, এ ঘরটি তার পৈত্রিক জায়গাতে হয়েছে । প্রথমে ঘরটি তার বিধবা পুত্রবধু আনোয়ারার নামে মঞ্জুর হওয়ায় পার্শ^বর্তী হালটে ঘর না করে নিজেদের সুবিধার্থে পৈত্রিক জমিতে বসতঘর ভেঙ্গে জায়গা করে দিয়েছেন । কিছুদিন পর আনোয়ারা অন্যত্র বিয়ে হয়ে চলে যান। পরে এই ঘর আনোয়ারার শিশু কন্যার বসবাসের সুবিধার্থে আব্দুল মমিনের স্ত্রী রাহেলা বেগমের নামে স্থানান্তর করার আবেদন করা হয়। এ সময় ইউপি চেয়ারম্যান আবুবকর ছিদ্দিকী রাহেলা বেগমকে ঘরে বসবাস করার কথা বলেন। সে থেকে তারা ঘরের মালিক হিসেবে বসবাস করে আসছেন।

উপজেলা সার্ভেয়ার মো. সেলিম শেখ জানান, ঘরটি করার সময় আব্দুল মমিন কোন বাধা দেননি। দীর্ঘদিন পরে তিনি এই জমি তার পৈত্রিক হিসেবে দাবী করছেন । ঘর করার আগে ঘরের জমি মেপে হালট জমি হিসেবে পেয়েই ঘর করা হয়েছে ।

বিজ্ঞাপন

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফুজ্জামান জানান, এই ঘরটি আনোয়ারার নামে মঞ্জুর হয় । তিনি অন্যত্র বিয়ে হয়ে গেলে এই ঘর আব্দুল খালেক নামে অন্য একজনকে দেয়া হয়েছে । আনোয়ারার শশুর ঘরটিতে বসবাস আবস্থায় ছিলো তারা ঘরের দখল নিয়ে জামেলা করছিলো । এখন তারা ঘরের দখল ছেড়ে দিয়েছে।

আরও পড়ুন: নির্দিষ্ট সময়ে কাজ না করেই প্রকল্পের টাকা উত্তোলণ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সর্বশেষ সংবাদ

বিজ্ঞাপন
x