ময়মনসিংহে গারো ব্যাপ্টিষ্ট কনভেনশন জিবিসি’র ভূমি বেদখলকারীদের হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মানববন্ধন। 

এস আর বাবুল,দুর্জয় বাংলা।।

গত ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ ময়মনসিংহের কাচিঝুলি সাহেব কোয়ার্টার মেহগনি রোডে জিবিসি বাংলাদেশ বৃহত্তর ময়মনসিংহের সকল আদিবাসি ছাত্র ও সামাজিক সংগঠন সমূহের আয়োজনে গারো ব্যাপ্টিষ্ট কনভেনশন জিবিসি’র ভূমি বেদখল ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী আদিবাসি খ্রীষ্টিয়ান চার্চের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই গত ২৬.০২.২০১৯ ইং তারিখে সকাল ৯ ঘটিকায় মি. পঙ্কজ মারাক, মি. অভয় চিসিম, মি. সুরঞ্জন ডিব্রা, মি. লিটন ¤্রং, মি. টাইটাস হিল্লোল রেনা এডভোকেট ও কতিপয় সন্ত্রাসীদের নির্দেশে রূপসী বাংলা বহুমুখী সমবায় সমিতি এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর আবুল হোসেনের নির্দেশে তাহার কিছু কর্মচারী ও ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী বে-আইনীভাবে উক্ত হোল্ডিং এর জায়গা ও গৃহাদী জবর দখলের প্রচেষ্টায় লিপ্ত হয়ে বাউন্ডারী দেওয়াল নির্মানের উদ্যোগ নিলে জিবিসি বাংলাদেশ জেনারেল সেক্রেটারী “জিএস” পাস্টার মৃনাল মূর্মু কয়েকজনকে সঙ্গে নিয়ে তাহাদের হেন কাজে বাধা দেন। তাহাতে উক্ত লোকজন জিবিসি’র জিএস ও তাহার সঙ্গীদের প্রতি চরম ক্ষিপ্ত হইয়া নানারকম অশালীন গালিগালাজ সহ জীবননাশের হুমকি দেন বলে তাদের প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্যে উল্লেখ করেন। তারা আরো বলেন এই অবস্থায় কাঁচিঝুলি তথা ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন এলাকায় জিবিসির কর্মকর্তাদের ও ইহার সদস্যদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রার নিরাপত্তা ও ২ নং ওয়ার্ডস্থ কাঁচিঝুলি সাহেব কোয়ার্টার এলাকার মেহগনি রোডে সিডনি হাউজের ভূ সম্পত্তি চরম হুমকির সম্মুখীন। এই বিষয়ে অবহিত করে তারা ঘটনার দিন ময়মনসিংহ কোতোয়ালী মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন বলে বক্তব্যে উল্লেখ করেন। তারা আরো বলেন পরিতাপের বিষয় এই যে, কোতোয়ালী মডেল থানায় এখন অবধি এই বিষয়ে কোন প্রকার তদন্ত বা আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি।

তাদের দাবী সমূহের মধ্যে গারো ব্যাপ্টিষ্ট কনভেনশন এর দাবীগুলো হচ্ছে আগামী ৭ দিনের মধ্যে জালিয়াতি চক্র ও রূপসী বাংলার সাথে সৃজিত অবৈধ লিস্ট বাতিল করা, জিবিসি বিরুদ্ধ জালিয়াতি চক্রের ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা, জিবিসির ভূ-সম্পত্তি তদস্থিত বাড়িঘর ও অন্যান্য স্থাপনাসমূহের নিরাপত্তা বিধান করা, জিবিসি কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ও কর্মকর্তাদের স্বাভাবিক সাংগঠনিক কর্মকান্ড পরিচালনা নিরাপত্তা করা, জিবিসি কেন্দ্রীয় নেতৃবর্গ ও কর্মকর্তা সদস্য ও শুভাকাঙ্খীদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রার নিরাপত্তা বিধান করা।

জিবিসি বাংলাদেশ বৃহত্তর ময়মনসিংহের সকল আদিবাসি ছাত্র ও সামাজিক সংগঠন সমূহ সহ কর্মরত উপস্থিত ব্যক্তিবর্গ বলেছেন ব্যাপ্টিষ্ট কনভেনশন জিবিসি, বাংলাদেশের গারো খ্রীষ্টান সম্প্রদায়ের ১২৮ বছরের ঐতিহ্যবাহী সামাজিক, অরাজনৈতিক, অলাভজনক ও ধর্মীয় সংগঠন। যার কেন্দ্রীয় কার্যালয় নেত্রকোনা জেলার সুসং দূর্গাপুর উপজেলার বিরিসিরিতে অবস্থিত। ১৮৬০ সালের সোসাইটি রেজিষ্ট্রেশন এ্যাক্ট অনুসারে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের রেজিষ্ট্রার অব জয়েন্ট স্টক কোম্পানী এন্ড ফার্মস দ্বারা নিবন্ধিত যাহার একটি সুচারু পরিচালনা নীতিমালা অর্থ্যাৎ মেমোরান্ডাম অব রুলস এন্ড রেগুলেশনস রয়েছে। যা ১১টি বিভাগের মাধ্যমে দেশের ৮টি জেলায় ৫০ হাজার এর অধিক খ্রীষ্ট বিশ্বাসীদের মাঝে আত্বিক উন্নয়নমূলক কাজের পাশাপাশি সকল ধর্ম বর্ণের মানুষের জীবনযাত্রার উন্নয়নের জন্য শিক্ষা, চিকিৎসা সহ নানা প্রকার উন্নয়নমূলক কার্যক্রম পরিচালিত হয়। আরো বলেন অত্র সংগঠনের সকল কার্যক্রম পরিচালনা ও তত্ত্বাবধানের জন্য ৭ সদস্য বিশিষ্ট নির্বাচিত কেন্দ্রীয় কমিটি রয়েছে। ইহার কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বিভিন্ন বিভাগগুলিতে বিভিন্ন প্রকার স্থাপনা সহ রয়েছে নিজস্ব ভূ-সম্পত্তি।

বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানবন্ধনকারীরা গণতন্ত্রের মানষকন্যা, বাংলাদেশের সফল প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে বিষয়টি তদন্ত স্বরূপ সমাধানের জন্য বিক্ষোভ সমাবেশের পর ময়মনসিংহের প্রাণকেন্দ্র সাহেব কোয়ার্টার থেকে টাউন হল, গাঙ্গিনারপাড় হয়ে মেইন রোড গুলো প্রদক্ষিন করে নৃশংস ঘটনার প্রতিবাদী উচ্চারণের মধ্য দিয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সমবেত হন। পরে প্রধানমন্ত্রী বরাবর ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে উপস্থিত অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শেখ মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেনের নিকট স্মারকলিপি প্রদান করেন।

গারো ব্যাপ্টিষ্ট কনভেনশনের ময়মনসিংহে বিক্ষোভ সমাবেশ, মানববন্ধন ও প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদানে উপস্থিত ছিলেন জেনারেল সেক্রেটারী মৃনাল মূর্মু, প্রেসিডেন্ট শৈবাল সাংমা সহ উপস্থিত নেতৃবৃন্দ ও কর্মীবৃন্দ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

Please enter your comment!
Please enter your name here