1. durjoybangla24@gmail.com : durjoy bangla : durjoy bangla
  2. afzalhossain.bokshi13@gmail.com : Afjal Sharif : Afjal Sharif
  3. aponsordar122@gmail.com : Apon Sordar : Apon Sordar
  4. awal.thakurgaon2020@gmail.com : abdul awal : abdul awal
  5. sheblikhan56@gmail.com : Shebli Shadik Khan : Shebli Shadik Khan
  6. jahangirfa@yahoo.om : Jahangir Alam : Jahangir Alam
  7. mitudailybijoy2017@gmail.com : শারমীন সুলতানা মিতু : শারমীন সুলতানা মিতু
  8. nasimsarder84@gmail.com : Nasim Ahmed Riyad : Nasim Ahmed Riyad
  9. netfa1999@gmail.com : faruk ahemed : faruk ahemed
  10. mdsayedhossain5@gmail.com : Md Sayed Hossain : Md Sayed Hossain
  11. absrone702@gmail.com : abs rone : abs rone
  12. sumonpatwary2050@gmail.com : saiful : Saiful Islan
  13. animashd20@gmail.com : Animas Das : Animas Das
  14. Shorifsalehinbd24@gmail.com : Shorif salehin : Shorif salehin
  15. sbskendua@gmail.com : Samorendra Bishow Sorma : Samorendra Bishow Sorma
  16. swapan.das656@gmail.com : Swapan Des : Swapan Des
রহিমা হত্যা মামলা কেন্দুয়ায় অবশেষে পুলিশের কাছে ধরা নিহতের স্বামী ও ছেলে - durjoy bangla | দুর্জয় বাংলা
শুক্রবার, ১৪ অগাস্ট ২০২০, ১০:৩৬ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ




রহিমা হত্যা মামলা কেন্দুয়ায় অবশেষে পুলিশের কাছে ধরা নিহতের স্বামী ও ছেলে

দুর্জয় বাংলা ডেস্কঃ
  • শুক্রবার, ৩ জুলাই ২০২০, ৪:১৯ অপরাহ্ণ
  • ৩০৯ বার পঠিত
কেন্দুয়ায় চাঞ্চল্যকর রহিমা হত্যা মামলার বাদী স্বামী ও ছেলে গ্রেফতার
কেন্দুয়ায় চাঞ্চল্যকর রহিমা হত্যা মামলার বাদী স্বামী ও ছেলে গ্রেফতার

নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার চাঞ্চল্যকর রহিমা হত্যা মামলায় অবশেষে পুলিশের কাছে ধরা পড়লেন নিহতের স্বামী ও বাদী স্বামী রিটন মিয়া (৫০) এবং ছেলে আসাদুল (২০)। গ্রেফতারের পর পুলিশ তাদের দুদিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। পরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের মামলাটির আসামী করে আদালতের মাধ্যমে নেত্রকোনা জেলহাজতে পাঠানো হয়।
এদিকে ঘটনার ৩ বছর পর মামলার বাদী ও নিহতের স্বামী এবং ছেলেকে গ্রেফতার করায় ঘটনার প্রকৃত রহস্য উদঘাটিত হবে বলে প্রত্যাশা করছেন এলাকাবাসী।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২০১৬ সালের ২৯ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় নিজ বাড়ি এলাকায় খুন হন রহিমা আক্তার। পরে এ ঘটনায় ২০১৭ সালের ৪ জানুয়ারি স্বামী রিটন মিয়া বাদী হয়ে একই গ্রামের ১৩ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। তবে মামলা দায়েরের কয়েকদিন পরই মামলাটি সিআইডিতে হস্তান্তর করে পুলিশ এবং সিআইডির তদন্ত শেষে মামলাটি পুলিশ ইনভেস্টিগেশন ব্যুরো (পিবিআই) ময়মনসিংহে হস্তান্তর করা হয়। কিন্তু পিবিআই’র তদন্ত শেষে আবারো মামলাটি নেত্রকোনা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কাছে হস্তান্তর করা হয়। বেশ কয়েকটি সংস্থা মামলাটি তদন্ত করলেও রহিমা হত্যার প্রকৃত রহস্য যখন উদঘাটিত হচ্ছিল নাÑ ঠিক এমন সময় নেত্রকোনার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-২ চলতি বছরের ১০ ফেব্রæয়ারি ধার্য্য তারিখে কেন্দুয়া সার্কেলের দায়িত্বে থাকা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) মাহমুদুল হাসানকে মামলাটির অধিকতর তদন্তের জন্য দায়িত্ব দেন।
এএসপি মাহমুদুল হাসান মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পাওয়ার পরপরই তিনি তদন্ত শুরু করেন। তদন্তকালে বিভিন্ন সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে সন্দেহভাজন হিসাবে গত ২৮ জুন কেন্দুয়া বাজার এলাকা থেকে মামলার বাদী রিটন মিয়া ও তার ছেলে আসাদুলকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাদেরকে দুদিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে গত ১ জুলাই দুপুরে রিটন মিয়া ও ছেলে আসাদুলকে আসামী করে আদালতের মাধ্যমে নেত্রকোনা জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। রিটন মিয়া কেন্দুয়া উপজেলার মাসকা ইউনিয়নের পানগাঁও পশ্চিশপাড়া গ্রামের মৃত আমজদ আলীর ছেলে।

এ বিষয়ে শুক্রবার (৩ জুলাই) বিকালে কেন্দুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামানের সাথে কথা হলে তিনি এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
এদিকে বিষয়ে মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কেন্দুয়া সার্কেল) মাহমুদুল হাসানের সাথে কথা হলে তিনি জানান, রহিমা হত্যা মামলার বাদী ও তার ছেলেকে গ্রেফতার করে দুদিন রিমান্ডে জিজ্ঞামাবাদ শেষে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে মামলার বাদী ও তার ছেলের দেয়া তথ্যমতে এবং বিভিন্ন সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে অচিরেই এ হত্যাকাÐের প্রকৃত রহস্য উন্মোচিত হবে বলেও জানান তিনি।

আরো পড়ুন>>> কেন্দুয়ায় চাঞ্চল্যকর রহিমা হত্যা মামলার বাদী স্বামী ও ছেলে গ্রেফতার

আপনার মতামত লিখুনঃ
নিউজটি সেয়ার করার জন্য অনুরোধ রইল!
এই জাতীয় আরো সংবাদ
durjoybangla.conlm_৮ বছরে







©২০১৩-২০২০ সর্বস্তত্ব সংরক্ষিত | দুর্জয় বাংলা

কারিগরি সহযোগিতায় দুর্জয় বাংলা