13.7 C
New York
মঙ্গলবার, আগস্ট ৩, ২০২১

শেখের বেটির কথায় কত মানবিক ময়মনসিংহের পারুল!

বিজ্ঞাপন

বদরুল আমীন, ময়মনসিংহ :

বিজ্ঞাপন

মুরগির ব্যবসা করেন তিনি। নাম তার পারুল। বয়স আনুমানিক চল্লিশের মত হবে। বসবাস করেন, ময়মনসিংহ রোড স্টেশন। আর ব্যবসা করেন কাচিঝুলি সাহেব কোয়াটার বাজারে। স্বাদ আছে অনেক! কিন্তু সাধ্য নেই। তবুও সে মানবতার ফেরিওয়ালা। তিনিও দেশে করোনা দুর্যোগে শতাধিক অসহায় পরিবারের মাঝে বিতরণ করেছেন ৬ শ কেজি চাউল ও ৫০ কেজি ডাউল।

ময়মনসিংহ শহরের ১ নং ওয়াডে অনেকেই কোটি পতি আছেন। কোটি কোটি টাকার সম্পদ সম্পত্তি ও ব্যাংকে কারি কারি টাকা থাকার পরও মুরগি বিক্রেতা পারুলের মত চমক কেউ দেখাতে পারেনি। কেউ দিতে পারেনি মহত মানবিকতার পরিচয়! এটা হয়তো বিত্তবানদের শিক্ষনীয় বিষয় হতে পারে। পারুলের প্রায় লাখ টাকার মুরগীর ব্যবসা। তবুও তার হ্রদয়ে দাগ কেটেছে দুর্গত পিড়িত অসহায় মানুষের অভাব দেখে। সামর্থের মাঝে যা পেরেছে তাই তিনি করেছেন।

বিজ্ঞাপন

পারুল তার নিজ তহবিলের অর্থ দিয়ে কিনেছেন ৬ শ কেজি চাউল। আর কিনেছেন ৫০ কেজি ডাউল।এসকল চাউল-ডাউল তিনি নিজেই তার স্বামীকে নিয়ে শখানেক প্যাকেট করে খাগডহর রোড স্টেশন এলাকার হতদরিদ্রদের মাঝে বিতিরন করেন। কেন তার মনে এমন চিন্তা চেতনা হলো জানতে চাইলে পারুল জানান, মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন সমাজের বিত্তশালীদের অভাবী মানুষের পাশে দাড়াতে।

আমি শেখ হাসিনাকে ভালোবাসি। তার কথায় আমি আমার সাধ্যের মধ্যে চাউল-ডাউল বিতরণ করি। তিনি এখনো অনাহারি মানুষের মাঝে খাদ্য বিতরণ করেন। তিনি আরো বলেন, আমি কোন ছবি তুলতে দেইনি। কারণ সবাই লকডাউনে ও দুর্যোগের কারনে বেকার হয়ে গেছেন। তাদের আয় রোজগার বন্ধ। কাউকে লজ্জায় ফেলতে চাইনা। তারা খেটে খাওয়া মানুষ। আমিও খেটে খাই। আমার ২ ছেলে ও ২ মেয়ে। মায়ের ( শেখ হাসিনার) কথায় আমি এগিয়ে গেছি। আমার আরো থাকলে আমি আরো দিতাম। সত্যি কত উদার এই পারুল। সত্যি কত মানবিক।

বিজ্ঞাপন

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

Please enter your comment!
Please enter your name here

বিজ্ঞাপন

সর্বশেষ সংবাদ

x