মঙ্গলবার ০৫ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০

দুর্জয় বাংলা || Durjoy Bangla

বকশীগঞ্জে জলাবদ্ধতায় শতাধিক পরিবার পানি বন্দী

প্রকাশিত: ২১:২০, ২৯ আগস্ট ২০২৩

বকশীগঞ্জে জলাবদ্ধতায় শতাধিক পরিবার পানি বন্দী

বকশীগঞ্জে জলাবদ্ধতায় শতাধিক পরিবার পানি বন্দী

জামালপুরের বকশীগঞ্জে পুকুরের বাঁধের কারণে বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। ফলে পানি বন্দী হয়ে পড়েছে শতাধিক পরিবারের প্রায় সাড়ে ৭০০ মানুষ। এতে করে চরম দুর্ভোগ দেখা দিয়েছে পানি বন্দী পরিবার গুলোর। 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কয়েক দিনের প্রবল বর্ষণে উপজেলার বাট্টাজোড় ইউনিয়নের ঝুড়ার পাড় গ্রাম প্লাবিত হয়ে যায়। এই গ্রামে পানি বের হওয়ার কোন ব্যবস্থা না থাকায় কোথাও হাঁটু পানি আবার কোথাও কোমর পর্যন্ত পানি হয়েছে। একারণে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। এই গ্রামের বেশির ভাগ বাড়ি ঘর ও রান্না ঘরে পানি উঠেছে। পানি নিষ্কাশনের কোন ব্যবস্থা না থাকায় মানবেতর জীবনযাপন যাপন করছেন শতাধিক পরিবার। অনেক পরিবারের রান্না ঘরের চুলা পানির নিচে থাকায় হোটেল থেকে রুটি বা শুকনো খাবার খেয়ে দিনানিপাত করছেন পানি বন্দী পরিবার গুলো। এসব পরিবারের গবাদি পশু গুলো রাস্তায় রাখা হয়েছে। 

অনেক পরিবার তাদের শিশু বাচ্চা নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন।  পানিতে পড়ে যাওয়ার ভয়ে সারাক্ষণ পাহাড়া দিয়ে রাখতে হচ্ছে। অনেকের ঘরে পানি উঠায় আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছেন। 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগে জানা যায়, এই গ্রামের প্রভাবশালী হাজী শামসুদ্দিন নন্দ এর ছেলে আমিনুল ইসলাম বাবুলের দুটি পুকুরের বাঁধের কারণে বৃষ্টির পানি বের হতে পারে না। বাঁধ দুটির কারণে বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় পানি বন্দী হয়ে চরম দুর্ভোগের শিকার হয়েছেন নারী,শিশু, বৃদ্ধা সহ প্রায় সাড়ে ৭০০ মানুষ। স্থানীয় গ্রামবাসী বাঁধ দুটিতে পাইপ লাগিয়ে পানি নিষ্কাশন করতে চাইলে পুকুর মালিক তাতে রাজী হননি। ফলে ৫ দিন ধরে পানি বন্দী হলেও জলাবদ্ধতা কাটেনি। 

স্থানীয় শাহজাহান আখতার জানান, আমরা শিশু বাচ্চা সহ গবাদি পশু নিয়ে বেকায়দায় পড়েছি। জলাবদ্ধতার কারণে চলাচল ও পয়নিষ্কাশন নিয়ে বিপাকে পড়েছি। তাই আমরা উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

আরও পড়ুন: বকশীগঞ্জে বিট পুলিশিং মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত


Notice: Undefined variable: sAddThis in /home/durjoyba/public_html/details.php on line 809