সোমবার ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০

দুর্জয় বাংলা || Durjoy Bangla

মধ্যনগরে কৃষককের ধান ঘরে তুলার রাস্তা কেটেই হচ্ছে হাওর রক্ষা বাঁধের কাজ

প্রকাশিত: ১৪:৪১, ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

আপডেট: ১৪:৪২, ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

মধ্যনগরে কৃষককের ধান ঘরে তুলার রাস্তা কেটেই হচ্ছে হাওর রক্ষা বাঁধের কাজ

মধ্যনগরে কৃষককের ধান ঘরে তুলার রাস্তা কেটেই হচ্ছে হাওর রক্ষা বাঁধের কাজ

সুনামগঞ্জের মধ্যনগর উপজেলার চামরদানী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের আলীহারপুর গ্ৰামের কৃষকদের ধান হাওর থেকে ঘরে আনার রাস্তা কেটে নিয়ে আসছে একই গ্ৰামের সাইকুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি।

আজ ৩ই জানুয়ারি সকালে আলীহারপুর গ্ৰামের সামনে রাস্তা থেকে মাটি কেটে নিয়ে আসতে দেখা যায় সাইকুল ইসলামের মাটি কাটার কাজে নিয়োজিত শ্রমিকরা।

সরজমিনে গিয়ে গ্ৰামবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায় সাইকুল ইসলাম মধ্যনগর উপজেলার হাওর রক্ষা বাঁধের ৩২নম্বর পিআইসি কমিটির সভাপতি।উনি গ্ৰামের একজন প্রভাবশালী ব্যক্তি হওয়ায় এই গ্রামের সকলের চলাচলের রাস্তা কেটে নিয়ে বাঁধে মাটি দিচ্ছে।  গ্ৰামবাসীরা রাস্তা কেটে যাতে না আনে কাজে বাধা দিলে সে গ্ৰামবাসীদের দেখে নেবে বলে হুমকি দেয়। গ্ৰামবাসীদেরকে বলে আমরা তার কাজে বাধা দিয়েছি তার কাছে চাঁদা দাবি করছি আমি সবার নামে মামলা দিবো।

আলীহারপুর গ্ৰামের অলিউল্লা  বলে আমি আলীহারপুর গ্ৰামের ছেলে  আমরা ছোট বেলা থেকেই দেখে আসছি সাইকুল ইসলাম একজন খারাপ লোক। দীর্ঘ দিন ধরে আমাদেরকে অত্যাচার নির্যাতন করে আসছে।আমরা এতদিন ভয়ে প্রতিবাদ করতে পারি নাই।এখন আমাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে, আমাদের একমাত্র বোরো ফসল ঘরে  তোলার একটি মাত্র রাস্তা উনি কেটে নিয়ে বাঁধে মাটি দিচ্ছে।ধান যদি ঘরে আনতে না পারি হাওর রক্ষা বাঁধ দিয়ে কি হবে আমাদের।আমরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অতীশ দর্শী চাকমার মহোদয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

অভিযুক্ত সাইকুল ইসলামের চাচাত ভাই উজ্জল মিয়া জানান এদের জন্মই হয়েছে মানুষ কে অত্যাচার করার জন্য,অন্যের জমি দখল করার জন্য। অভিযুক্ত সাইকুল ইসলামের সাথে কথা বললে উনার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন গ্ৰামবাসী আমার কাছে বলছে রাস্তার জায়গাটা ভরাট করে দেওয়ার জন্য। আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ যেহেতু হইছে এখন আর রাস্তা ভরাট কইরা আর দিতাম না আইনে যা হয় হইব।

 আলীহারপুর গ্ৰামের  বর্তমান ইউপি সদস্য মোসারফ হোসেনের কথা বললে তিনি বলেন আমি সাইকুল ইসলাম চাচার সাথে কথা বলেছি উনি আমাকে কথা দিয়েছে রাস্তার জায়গাটা ভরাট করে দিবে। কিন্তু দেই দিচ্ছি বলে ১২দিন গত হয়ে গেছে।আজ সকালে ঘটনা স্থলে গ্ৰামের লোকজন গিয়ে বিভিন্ন রকম কথা বলছে । আমি সবাই নিয়ে বাড়ি চলে এসেছি ও তাদের বলেছি আমরা সবাই ইউএনও স্যারের কাছে যাই।

এবিষয়ে মধ্যনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অতীশ দর্শী চাকমার সাথে কথা বললে তিনি জানান আমি এখনই এছো সাহেবের সাথে কথা বলে উনাকে ঘটনা স্থলে পাঠাচ্ছি।

আরও পড়ুন: মুন্সীগঞ্জে জেলদের মাঝে চাল বিতরণ


Notice: Undefined variable: sAddThis in /home/durjoyba/public_html/details.php on line 808