শনিবার ০২ মার্চ ২০২৪, ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০

দুর্জয় বাংলা || Durjoy Bangla

কেন্দুয়ায় নানা আয়োজনে শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী পালন 

প্রকাশিত: ১৪:২৩, ৫ আগস্ট ২০২৩

কেন্দুয়ায় নানা আয়োজনে শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী পালন 

কেন্দুয়ায় নানা আয়োজনে শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী পালন 

নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় নানা আয়োজনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ পুত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল এঁর ৭৪তম জন্মবার্ষিকী পালন উপলক্ষে  বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামালে প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন, ১৫ আগষ্টসহ নিহত সকল শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে ১ মিনিট দাঁড়িয়ে নীরবতা পালন, আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

শনিবার (৫ আগষ্ট) সকালে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে কেন্দুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কাবেরী জালালের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, কেন্দুয়া আটপাড়া আসনের সংসদ সদস্য বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল।

প্রধান অতিথি এমপি অসীম কুমার উকিল বলেন, শেখ কামাল একাধারে যেমন দেশের সেরা ক্রীড়া সংগঠক এবং ক্রীড়াবিদ ছিলেন, তেমনি ছাত্র হিসেবেও তিনি ছিলেন অত্যন্ত মেধাবী। পড়াশোনার পাশাপাশি তিনি মনে প্রাণে দেশীয় সংস্কৃতি লালন এবং চর্চা করতেন। খেলাধুলা, সংগীত, অভিনয়, বিতর্ক, উপস্থিত বক্তৃতা ইত্যাদি প্রতিটি ক্ষেত্রেই তাঁর অবদান ছিল অনস্বীকার্য।

শেখ কামাল বাংলাদেশের প্রথম ওয়ার কোর্সে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত হয়ে মুক্তিবাহিনীতে কমিশন লাভ করেন ও মুক্তিযুদ্ধের প্রধান সেনাপতি জেনারেল ওসমানীর এডিসি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। স্বাধীনতার পর সেনাবাহিনী থেকে অব্যাহতি নিয়ে তিনি লেখাপড়ায় মনোনিবেশ করেন। মাত্র ২৩ বছর বয়সে দেশের প্রথম আধুনিক ক্লাব আবাহনী ক্রীড়া চক্রের জন্ম দিয়েছিলেন শেখ কামাল। বন্ধু শিল্পীদের নিয়ে তিনি গড়ে তুলেছিলেন ‘স্পন্দন শিল্পী গোষ্ঠী’। শেখ কামাল ছিলেন ঢাকা থিয়েটারের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা। অভিনয় শিল্পী হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যাঙ্গনে প্রতিষ্ঠিত ছিলেন।

শৈশব থেকে ফুটবল, ক্রিকেট, হকি, বাস্কেটবলসহ খেলাধুলায় ব্যাপক উৎসাহ ছিল তার।বহুমাত্রিক অনন্য সৃষ্টিশীল প্রতিভার অধিকারী তারুণ্যের দীপ্ত প্রতীক শেখ কামাল শাহীন স্কুল থেকে মাধ্যমিক ও ঢাকা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করার পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগ থেকে বিএ অনার্স পাস করেন। তিনি বাংলাদেশের শিল্প, সাহিত্য ও সংস্কৃতি অঙ্গনের অন্যতম উৎসমুখ ছায়ানট-এর সেতার বাদন বিভাগের ছাত্র ছিলেন। সর্বোপরি শেখ কামালের ৭৪তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে গৃহীত সব অনুষ্ঠানের সফলতা কামনা করেন তিনি।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, কেন্দুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ নূরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট আব্দুল কাদির ভূঁইয়া, সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মো.আসাদুল হক ভূঁইয়া, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি)মো. রাজীব হোসেন, কেন্দুয়া সার্কেলের এএসপি হোসাইন মোহাম্মদ ফারাবী, কেন্দুয়া থানা পুলিশ কর্মকর্তা (ওসি)মো.আলী হোসেন পিপিএম, বক্তব্য রাখেন, কেন্দুয়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মোঃ বজলুর রহমান, কেন্দুয়া উপজেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা প্রমূখ। 

এসময় কেন্দুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. কামরুল হাসান ভূঁইয়া, মো.তাজুল ইসলাম, মো.শহিদুল হক ফকির বাচ্চু, সাংগঠনিক সম্পাদক মো.হুমায়ুন কবীর ভূঁইয়া, মোস্তাফিজ উর রহমান বিপুল, আনোয়ারুল হক কনক, কেন্দুয়া রিপোর্টার্স ক্লাবের সভাপতি আসাদুল করিম মামুন, কেন্দুয়া প্রেস ক্লাবের সহ সভাপতি সুনীল পোদ্দার, উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ, উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ, সক সহযোগী ও ভাতৃপ্রতিম সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ, বীর মুক্তিযোদ্ধাগণসহ সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

শেষে উপজেলা জামে মসজিদের পেশ ইমাম মওলানা ওবাইদুল্লাহ বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামালের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া পরিচালনা করা হয়। 

আরও পড়ুন: ঝিনাইগাতীতে শেখ কামালের ৭৪তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন


Notice: Undefined variable: sAddThis in /home/durjoyba/public_html/details.php on line 808