মঙ্গলবার ০৫ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০

দুর্জয় বাংলা || Durjoy Bangla

শেরপুর-৩ আসনের টানা তিনবারের এমপি দলীয় মনোনয়ন থেকে বঞ্চিত

প্রকাশিত: ২০:৫৯, ২৯ নভেম্বর ২০২৩

শেরপুর-৩ আসনের টানা তিনবারের এমপি দলীয় মনোনয়ন থেকে বঞ্চিত

শেরপুর-৩ আসনের টানা তিনবারের এমপি দলীয় মনোনয়ন থেকে বঞ্চিত

শেরপুর জেলার ঝিনাইগাতী ও শ্রীরবর্দী উপজেলা নিয়ে গঠিত শেরপুর তিন আসনের আওয়ামীলীগের দলীয় টিকেটে টানা তিনবারের এমপি আলহাজ্ব এ,কে,এম ফজলুল হক চান এবার দলীয় মনোনয়ন থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। তার আপন ভাই ১৯৯৩ সালে বিএনপির এমপি ডা: সেরাজুল হক সড়ক দূর্ঘটনায় মৃত্যু বরণ করলে এই আসন থেকে বিএনপির টিকেট চেয়ে বঞ্চিত হয়ে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন নিতে মরিয়া হয়ে রাজনীতির মাঠে কাজ শুরু করেন। 

২০০৮ সালে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন পেয়ে এমপি নির্বাচিত হয়ে কপাল খুলে যায় এ,কে,এম ফজলুল হক চান এর।টানা তিনবারের এমপির দায়িত্ব পালন করে দুই উপজেলায় দলের মধ্যে ব্যাপক গ্রুপিং সৃষ্ঠি করে তার পক্ষে এক বলয় তৈরী করেন।জননেত্রী শেখ হাসিনা সারা দেশে যে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখেছেন তার ধারাবাহিকতায় ঝিনাইগাতীতে উন্নয়ন হয়েছে।তার দ্বারায় উল্লেখযোগ্য কোন উন্নয়ন চোখে পড়ার মতো নয়। তার বলয়ের লোকজনকে কাছে নিয়ে দলকে বিতর্কিত করে তুলেছেন । 

আওয়ামীলীগের মূল দলকে পাস কাটিয়ে দলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্য করেছেন। ১৫ বছরে দায়িত্ব পালন করে ডিও লেটার বাণিজ্য করেছেন বলে জনশ্রুত  রয়েছে।শেষ সময়ে এসেও সাংবাদিকদের ডিও লেটার দেওয়ার ফলে স্থানীয় সাংবাদিকদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করে। সাংবাদিকরা তিনার খবর বর্জন করেন। কলেজ সরকারী কারণে সকল প্রতিষ্ঠানে ডিও প্রদান করেন একাধিক ভাবে আলোচনায় আসে।এমন কি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটিতে তার লোক রাখার জন্যে এবং কি সামান্য ব্যাপারেও ডিও লেটার প্রদান করেছেন।বিভিন্ন বরাদ্বও বৈষম্য করে কাছের লোককে পাইয়ে দিয়েছেন। 

১৫ বছরে আমজনতা ও দলীয় নেতাকমীর্রা তার নিকট ভিড়তে পারেনি।তিনি অংঙ সহযোগী  সংগঠনের ২/৩ টি দলের সভাপতি/ সাধারণ সম্পাদকের সূযোগ সূবিধা দিয়ে সাধারণ মানুষকে বঞ্চিত করেছেন। তার নিকট দেখা করতে গেলে নিকটত্ব লোক ধরে ধর্ণা দিয়ে দিনের পর দিন অপেক্ষা করেও দেখা করতে হতো। তিনি এলাকায় আসলে কাছের লোক ব্যাতীত কারও সাথে কথা বলতো না। বয়সের ভারে কারও সালামও নিত না।মাঠ পর্যায়ের জরিপে গোয়েন্ধাদের ও সাংবাদিকদের রিপোর্টে এবার তার পক্ষে না যাওয়ার ফলে মনোনয়ন থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। 

শেরপুর তিন আসনে মনোনয়ন পরির্বতন হওয়ার ফলে আওয়ামীলীগের মাঝে আনন্দের বন্যা বইতে শুরু করেছেন।দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে নতুন দলীয় মনোনয়ন প্রাপ্ত এডিএম শহিদুল ইসলামের নিকট দলীয় নিতাকমীর্রা দলের কতিপয় দালাল বাটপার ও হাইব্রিড থেকে দূরে থেকে নির্বাচন পরিচালনা করার আহবান রেখে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন: নেত্রকোনা-১ আসনের নৌকার প্রার্থী রুহীকে অভ্যর্থনা 


Notice: Undefined variable: sAddThis in /home/durjoyba/public_html/details.php on line 809